সর্বশেষ
রবিবার ১২ই আশ্বিন ১৪২৭ | ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

করোনা ভাইরাস: সরকারকে আরও কঠোর হওয়ার আহ্বান

বৃহস্পতিবার, মার্চ ১৯, ২০২০

ttt.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

দেশে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ জনে। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে একজন নিহত হয়েছেন। করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সরকারকে আরও কঠোর অবস্থানে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট।বিদেশ ফেরতদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরদারি বাড়াতে হবে উল্লেখ করে জোট বলেছে, প্রয়োজনে তাদের আটক করতে হবে। তাদের কারণে ভাইরাসটি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে কোনো উদারতা ও দয়া-মায়া দেখানো যাবে না। কারণ,

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমন্ডিতে মোহাম্মদ নাসিমের বাসভবনে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের জরুরি বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে জোটের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মোহাম্মদ নাসিম।এসময় জরুরি ভিত্তিতে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় বিদেশ থেকে করোনা শনাক্তকরণ কিট ও ডাক্তার-নার্সদের সুরক্ষার জন্য পারসোনাল প্রটেকশন ইকুইপমেন্ট (পিপিই) আনার ব্যবস্থা করার আহ্বান জানান মোহাম্মদ নাসিম।

তিনি বলেন, ‘দেশে পর্যাপ্ত করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ কিট নেই। এ কারণে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে সরবরাহ করা হয়নি। ঢাকার আইইডিসিআর-এই একটি জায়গায় রোগ শনাক্ত করার কেন্দ্র আছে। রোগ শনাক্তকরণ কেন্দ্র আরো কয়েকটি করতে হবে। কিটও বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে পাঠাতে হবে। চিকিৎসার ক্ষেত্রে সরকারি ও অভিজ্ঞ বেসরকারি ডাক্তারদের কাজে লাগাতে হবে।’

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘আমি মনে করি, অবিলম্বে প্রয়োজনে বিশেষ বিমানে করে চীন, ভিয়েতনামসহ যেসব দেশে স্বাস্থ্য উপকরণ আছে, সেসব দেশ থেকে আনার ব্যবস্থা করতে হবে। যেখানে অর্থমন্ত্রী বলেছেন, অর্থের কোনো সমস্যা হবে না, সেখানে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জরুরি উদ্যোগ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহায়তায় দ্রুত কিট ও পিপিই আনা উচিত। এক্ষেত্রে সময়ক্ষেপণের সুযোগ নেই। কারণ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ইতোমধ্যে ঘোষণা করেছে, বাংলাদেশসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলো করোনা ঝুঁকিতে রয়েছে।’করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে যেখানে প্রয়োজন সেখানেই লকডাউন করার পরামর্শ দেন তিনি।

আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি, জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, সাবেক মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আক্তার, জাতীয় পার্টির (জেপি) প্রেসিডিয়াম সদস্য এজাজ আহমেদ মুক্তা, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, গণআজাদী লীগের সভাপতি এসকে শিকদার, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের সৈয়দ রেজাউল হক চাঁদপুরী, জাসদের মোহসিন হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, মার্চ ১৯, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৪৮৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন