সর্বশেষ
শুক্রবার ২৬শে আষাঢ় ১৪২৭ | ১০ জুলাই ২০২০

ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার দোষ স্বীকার করল সন্ত্রাসী ব্রেন্টন

বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৬, ২০২০

so.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে ৫১ মুসলিমকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে সন্ত্রাসী ব্রেন্টন টেরেন্ট। গত বছর ওই হামলা চালিয়ে সে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশিসহ মোট ৫১ জন মুসলিমকে হত্যা করে। এ সময় ওই দুটি মসজিদে মুসল্লিরা নামাজ আদায় করছিলেন। সেখানে প্রবেশ করে সে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। তার বিরুদ্ধে ৫১ জনকে হত্যা, আরও ৪০ জনকে হত্যাচেষ্টা এবং একটি সন্ত্রাসবাদে অভিযোগ ছিল। সবগুলোই তিনি স্বীকার করে নিয়েছেন। এর আগে অভিযোগগুলো অস্বীকার করেছিলেন ব্রেন্টন।

বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) ক্রাইস্টচার্চের আদালতে ব্রেন্টন তার দোষ স্বীকার করেন। করোনার কারণে বর্তমানে লকডাউন অবস্থায় রয়েছে নিউজিল্যান্ড। তাই আদালতে সাধারণ কোনো জনতাকে ঢুকতে দেয়া হয়নি এবং হামলাকারী ব্রেন্টন ও তার আইনজীবীরা ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে এ শুনানিতে অংশ নেন। তবে আদালতে দুই মসজিদে হামলায় ভুক্তভোগীদের পক্ষে প্রতিনিধি হিসেবে একজন উপস্থিত ছিলেন বলে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে।

বিচারক ক্যামেরন ম্যান্ডার বলেছেন, এটা দুঃখজনক যে, করোনা ভাইরাসের কারণে বিধিনিষেধে নিহত ও আহতদের পরিবারের সদস্যরা আদালতে উপস্থিত হতে পারেন নি, যখন অপরাধী তার দোষ স্বীকার করেছে।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১৫ মার্চ ফেসবুকে লাইভ দিয়ে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে হামলা চালান ব্রেন্টন ট্যারান্ট। জুমার নামাজ চলাকালে মুসল্লিদের ওপর অতর্কিত এই হামলা চালান তিনি। ভিডিও গেমসের ন্যায় একের পর এক মুসল্লিকে গুলি করে সামনের দিকে অগ্রসর হতে থাকেন ব্রেন্টন। এ হামলায় ৫১ জন প্রাণ হারান। সারাবিশ্বকে গভীরভাবে নাড়া দেয় এই হামলা।


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৬, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // রি সু এই লেখাটি ২৭৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন