সর্বশেষ
সোমবার ৬ই আশ্বিন ১৪২৭ | ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

করোনাভাইরাসকে আশীর্বাদ হিসেবে দেখছেন ল্যাঙ্গার

বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৬, ২০২০

justinlanger-getty2812-750.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

মহামারি আকার ধারণ করা করোনাভাইরাসের কারণে স্থবির পুরো বিশ্ব। ক্রীড়াঙ্গনেও এখন অচলাবস্থা। অবসর কাটাচ্ছেন খেলোয়াড়, কোচ থেকে শুরু করে সবাই। মাঠের মানুষদের জন্য মাঠ থেকে দূরে থাকা মানে একরকম শাস্তিই। আর তাই তো করোনাভাইরাসের ইতিবাচক দিকও দেখছেন অস্ট্রেলিয়া কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার।

অস্ট্রেলিয়ার কোচ এই ভাইরাসকে অনেকটা আশীর্বাদ হিসেবেই দেখছেন। মাঠ, হোটেল, বিমানবন্দর, শহর থেকে শহর ছুটোছুটি করতেই বছরের বেশিরভাগ সময় কেটে যায় ক্রিকেটার-কোচদের। ঘরে থাকা কিংবা পরিবারকে নিবিড়ভাবে সময় দেওয়ার সুযোগ মেলে খুব কমই। করোনাভাইরাসের কারণে খেলা বন্ধ থাকায় সে সুযোগ পাওয়া গেছে অপ্রত্যাশিতভাবে। এই দুঃসময়ের বলয়ে এটি একটু হলেও স্বস্তি, একটি ক্রিকেট ওয়েবসাইটের সঙ্গে কথোপকথনে বলেছেন ল্যাঙ্গার।

তিনি বলেন, সবচেয়ে বড় বাস্তবতা হলো, আমরা এখন স্রেফ বসে আছি। সত্যি বলতে, ব্যক্তিগতভাবে আমার জন্য এবং সব খেলোয়াড়ের জন্য এটা একরকম প্রশান্তির। পরিবারের সঙ্গে বাসায় থাকছি, নিজের বিছানায় ঘুমাচ্ছি, বাসায় রান্না করা খাবার খাচ্ছি এবং বাসা থেকে কিছুটা হলেও কাজ করতে পারছি। আমি ও আমার মতো আরও অনেকের, যাদের বছরে ১০ মাস ছুটোছুটির ওপর থাকতে হয়, তাদের জন্য এটি সুযোগ করে দিয়েছে পরিবারের সঙ্গে থাকার। এই যেমন দাড়ি বড় করলাম, জুতো পরার বাধ্যবাধকতা নেই, বাগানে যেতে পারছি, বাসা থেকেই অফিসের কাজ করতে পারছি। এসবই ইতিবাচক। অস্ট্রেলিয়ায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বিস্তার ঠেকাতে ইতোমধ্যে পাব, ক্লাব, জিম, ক্যাফে, সিনেমা হল ও উপাসনালয়ের মতো সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। 


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৬, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ৩৭৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন