সর্বশেষ
বুধবার ১৩ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ | ২৭ মে ২০২০

এসব ক্রিকেটারকে ফাঁসি দেওয়াই ভালো: মিয়াঁদাদ

শনিবার, এপ্রিল ৪, ২০২০

Sharjeel-Khan.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

পাকিস্তানের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান শারজিলের প্রত্যাবর্তন নিয়ে কথা বলেছেন মোহাম্মদ হাফিজ ও শহীদ আফ্রিদি। হাফিজ অবশ্য বরাবরই এসব নিয়ে উচ্চকণ্ঠ। এর আগে মোহাম্মদ আমিরের ফেরা নিয়েও আওয়াজ তুলেছিলেন হাফিজ। সেবারও তার কথায় কান দেয়নি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। কিন্তু সাবেক ক্রিকেটার জাভেদ মিয়াঁদাদ যা বললেন তাতে দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের অবাক হওয়ারই কথা। মিয়াঁদাদ কোনো কথার মারপ্যাচ করেননি। সরাসরি বলেছেন, যারা ম্যাচ পাতানোর সঙ্গে জড়িত হয়, তাদের ফাঁসি দেওয়াই ভালো।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে দায়ী করে তিনি বলেছেন, ‘পিসিবি এটা ঠিক করছে না। ওদের ক্ষমা করে দিচ্ছে। যারা এসব ক্রিকেটারকে আবার ফেরায় তাদের লজ্জা হওয়া উচিত। যারা এসব অপরাধ করেছে তারা নিজ পরিবার ও বাবা-মাকেও ভালোবাসে না। না হলে কখনো এসব করত না। ওদের আত্মাই ভালো না। মানবিক দিক থেকেই ওদের কাজকর্ম ভালো বলা যাবে না। এসব মানুষের বেঁচে থাকার অধিকার নেই।’নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে এবারের পিএসএলেই যোগ দিয়েছেন এই ওপেনার। খুব একটা ভালো করেছেন বলা যাবে না, তবু পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে ভালো করলে পাকিস্তান দলের দরজা খোলা আছে ভালোমতোই। এ নিয়ে নিজের অসন্তুষ্টির কথা জানিয়ে বিতর্ক তুলেছিলেন মোহাম্মদ হাফিজ।

শারজিলই প্রথম নন, পাকিস্তানে ম্যাচ পাতানো বা স্পট ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত খেলোয়াড়ের সংখ্যা কম নয়। শারজিলের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা ছিল দুই বছর। কারণ শুধু প্রস্তাব পাওয়াতেই থেমেছিল না তার অপকর্ম। বিশ্বকাপজয়ী মিয়াঁদাদ এমন অপরাধীদের জাতীয় দলে দেখা তো দূরে থাক, কোনোভাবেই ক্ষমা করতে চান না, ‘যারা স্পট ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত হয়, তাদের কঠিন শাস্তি দেওয়া উচিত। স্পট ফিক্সারদের ফাঁসিতে ঝোলানো উচিত কারণ, এ অপরাধ খুন করার মতো। তাই শাস্তিও একই হওয়া উচিত। আমাদের একটি উদাহরণ সৃষ্টি করতে হবে যেন কেউ এ ধরনের কিছু আর কখনো চিন্তা করতে না পারে। এসব আমাদের ধর্মের সঙ্গে যায় না এবং সেভাবেই শাস্তি দেওয়া উচিত।’


ঢাকা, শনিবার, এপ্রিল ৪, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ৫৮১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন