সর্বশেষ
শুক্রবার ২২শে জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ | ০৫ জুন ২০২০

চোখের খিদেয় জিনিস কিনি, শেখাল লকডাউন: দেব

মঙ্গলবার, এপ্রিল ৭, ২০২০

3_0.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা দেব। একজন সাংসদও তিনি। লকডাউনের কারণে ঘরবন্দি তিনিও। একটি ছবির শুটিং বন্ধ ও অন্য একটি ছবির মুক্তির তারিখ পিছিয়ে দিয়েছেন। এমন অবস্থায় লকডাউন অবস্থা কেমন কাটছে সে বিষয়ে একটি টেলি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তিনি। সেখানে জানিয়েছেন লকডাউন কেমন ভাবে শিক্ষা দিয়েছে তাকে।

দেব জানিয়েছেন, 'সোশ্যাল মিডিয়া নয়, আমি আমার বাড়িকে দেখছি। লকডাউনে থেকে বুঝলাম বাড়িতে এমন অনেক জায়গা আছে, কর্নার আছে, যেখানে আগে কনোদিন বসিইনি! অনুভব করিনি বাড়ির ব্যালকোনিতে দাঁড়িয়ে সূর্যের আলো শরীরে নিতে পারি!'

দেবের বাবা গুরুপদ অধিকারী এখন বাড়িতে। তাকে সামলাচ্ছেন দেব। তিনি বললেন, 'বাবার ষাট বছর বয়স। টেনশন করছে। আমাদের রেস্তরাঁর কী হবে? লোকজন আসবে কি না...চিন্তা করছে। এখন বাড়িতে আছি সামলাচ্ছি বাবাকে।'

দেব জানালেন সাংসদ হিসেবেও এলাকার ডিএম এর সঙ্গে নিয়মিত কথা হচ্ছে তার। ত্রাণ থেকে সতর্কতা সব দিকেই নজর রাখছেন সাংসদ। কিন্তু কোনোকিছুকেই এই সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়ে ফলাও করে প্রচার করতে চান না দেব। বরং বললেন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরে এসে গৃহবন্দি অবস্থায় নিজেকে নতুন করে চিনছেন তিনি।

কথা প্রসঙ্গে বলেন, 'জানেন একটা দামি প্রজেক্টর কিনেছিলাম।এতদিন সেদিকে নজরই পড়েনি। আজ হাত দিয়ে দেখি খারাপ হয়ে পড়ে আছে।' কাজপাগল দেব এতেই ক্ষান্ত হননি ইউটিউব দেখে শিখে নিয়েছেন কীভাবে প্রজেক্টর সারানো হয়। বাড়ি, সংসারের দায়িত্ব- এক ভিন্ন চেহারায় দেব নিজেকে তুলে ধরছেন। সাংসদ হলেও সঙ্গে কোনও নিরাপত্তারক্ষী বা ড্রাইভার রাখেননি।

তিনি জানান, 'জিনিস কেনার ক্ষেত্রে আমাদের চোখের খিদে বড্ড বেশি। ভাল কিছু দেখলেই কিনে ফেলি। লাগল কি লাগল না সে নিয়ে আর ভাবি না। লকডাউন আমায় এই বিষয়গুলো বুঝতে শেখাল।'

ইচ্ছে করেই কী এড়িয়ে গেলেন রুক্মীণির প্রসঙ্গ? বললেন, 'রুক্মিণীর সঙ্গে ভিডিয়ো কল করছি না। ওর সঙ্গেও সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স মেইন্টেন করছি'।


ঢাকা, মঙ্গলবার, এপ্রিল ৭, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ৩২২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন