সর্বশেষ
শনিবার ২৯শে শ্রাবণ ১৪২৯ | ১৩ আগস্ট ২০২২

এখনই হাফিজ-মালিকের বিদায় নেওয়া উচিৎ: রমিজ

বুধবার, এপ্রিল ৮, ২০২০

Mohammad-Hafeez-and-Shoaib-Malik.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

১৯৯৯ সালে ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করেন শোয়েব মালিক। এখন পর্যন্ত খেলেছেন ৩৫ টেস্ট, ২৮৭ ওয়ানডে ও ১১৩ টি-টোয়েন্টি। ২১৮ উইকেটের সঙ্গে রান করেছেন ১১ হাজার ৭৫৩, সেঞ্চুরি ১২টি ও হাফ সেঞ্চুরি ৬০টি। অন্যদিকে মোহাম্মদ হাফিজেরও আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শুরু ওয়ানডে দিয়ে, ২০০৩ সালে। ৫৫ টেস্ট, ২১৮ ওয়ানডে ও ৯১ টি-টোয়েন্টি রয়েছে তার নামের পাশে। ২১ সেঞ্চুরি ও ৬১ হাফ সেঞ্চুরিতে রান করেছেন ১২ হাজার ২৫৮। উইকেট নিয়েছেন ২৪৬টি।

দুজনই পাকিস্তানের হয়ে খেলেছেন দীর্ঘ দেড় যুগেরও বেশি সময় ধরে। পাকিস্তান ক্রিকেটের স্বার্থে তাদের এখন সম্মানের সঙ্গে অবসর নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন দলটির সাবেক অধিনায়ক রমিজ রাজা।

২০১৫ সালের নভেম্বরে লাল বলের ক্রিকেটকে বিদায় বলে দেন মালিক। ওয়ানডে থেকে অবসরের ঘোষণা দেন ২০১৯ বিশ্বকাপে। সাদা বলের ক্রিকেটে মনোযোগ দিতে ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে টেস্ট থেকে বিদায় থেকে বিদায় নেন হাফিজ। অবশ্য দুই জনই জানিয়ে ছিলেন, আগামী অক্টোবরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শেষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলে দিবেন তারা।

কিন্তু মহামারী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ঝুলছে বিশ্বকাপের ভাগ্য। একই সঙ্গে তাদের সময়ও ফুরিয়ে আসছে বলে মনে করছেন পাকিস্তানের হয়ে ৫৭ টেস্ট ও ১৯৮ ওয়ানডে খেলা রমিজ। তাদের উচিত সম্মানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলে দেওয়া…কোনো সন্দেহ নেই তারা দুইজনেই এত বছর ধরে পাকিস্তান ক্রিকেটের সেবা করে আসছে। কিন্তু আমি মনে করি, এখনই সময় তাদের সম্মানের সঙ্গে পাকিস্তান দল থেকে অবসর নেওয়ার।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ শেষে বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে মালিক-হাফিজ দুই জনকেই দলে রেখেছিল পাকিস্তান। সেই সিরিজে মালিক ৫৮ ও হাফিজ ৬৭ রানের দুটি অপরাজিত ইনিংস খেলে নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করেন। পাকিস্তানের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পরিকল্পনায় তারা আছেন বলেও জানিয়েছে পিসিবি। তবুও রমিজ মনে করছেন, তরুণদের সুযোগ দেওয়ার জন্য হাফিজ ও মালিকের অবসর নেওয়া উচিত।


ঢাকা, বুধবার, এপ্রিল ৮, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ১২৬০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন