সর্বশেষ
সোমবার ২২শে আষাঢ় ১৪২৭ | ০৬ জুলাই ২০২০

৩০০ মিলিয়ন পাউন্ডে নিউক্যাসলকে কিনতে যাচ্ছেন প্রিন্স সালমান

মঙ্গলবার, এপ্রিল ২১, ২০২০

salman2020-209057.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ইংলিশ ক্লাব নিউক্যাসল ইউনাইটেডের ভাগ্য বদলে যাচ্ছে। ক্লাবটির মালিকানায় পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে। ক্লাবটির মালিকানা নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন সৌদি আরবের প্রিন্স সালমান। তবে তার আগে হবে নিলাম। যার ভিত্তিমূল্য হতে পারে ৩০০ মিলিয়ন পাউন্ড। আর এ গুঞ্জন সত্য হলে গ্রিজম্যান-এমবাপ্পের মতো তারকা ফুটবলারদের দলে ভেড়ানোর জোর চেষ্টা চালাবে ম্যাগপাইরা।

নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে এ প্রজন্মের ফুটবল ভক্তরা ইংলিশ লিগের প্রতিযোগিতায় সংগ্রাম করতেই দেখেছে। ইপিএলে একবারও সেরার মুকুট মাথায় ওঠেনি ম্যাগপাইদের।

১২৮ বছরের ইতিহাসে এই ক্লাবটার কিছু সাফল্য যে নেই, তা নয়। ১৯৯২ সালে প্রিমিয়ার লিগ চালুর ৬৫ বছর আগে শেষবারের মতো প্রথম বিভাগ ফুটবলের শিরোপা জিতেছিল তারা। এফএ কাপের সবশেষ ট্রফি জয়টাও সেই ১৯৫৪-৫৫ মৌসুমে।

এতোগুলা বছর সমর্থকদের সঙ্গী হয়েছে শুধুই হতাশা। সেইন্ট জেমস পার্ক থেকে ভক্তরা ঘরে ফিরেছে দীর্ঘশ্বাস ফেলেই। টাইন নদীর পাড়ে এখন ফুটবল অন্তঃপ্রাণ এসব মানুষের ধৈর্য্যের বাধ ভাঙার উপক্রম। তারা কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে ক্লাবের মালিক মাইক অ্যাশলেকে। ব্রিটিশ ধনকুবের নিউক্যাসল ইউনাইটেডের সঙ্গে আছেন ২০০৭ সাল থেকে। এই ১৩ বছরে দু'বার ইপিএল থেকে অবনমিত হয়েছে ম্যাগপাইরা। এবার তাই পালাবদলের দাবি উঠেছে সব মহল থেকেই।

বেশ কয়েকবছর ধরেই ব্যাপক চাপের মুখে মাইক অ্যাশলে। এবার তাই ক্লাবটির সঙ্গে তার সম্পর্ক সত্যি সত্যিই ছিন্ন হতে যাচ্ছে। ১৩৫ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে মালিকানা পেয়েছিলেন অ্যাশলে। এবার যার ভিত্তিমূল্য হতে পারে অন্তত ৩০০ মিলিয়ন পাউন্ড। যদিও ৩ বছর আগে একবার এ প্রক্রিয়া মাঝপথেই থেমে যাওয়ার নজির আছে। ২০০৮ সালে আবুধাবির রাজপরিবারের সদস্য শেখ মনসুরকে আরেক ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটির মালিকানা পাইয়ে দিতে মধ্যস্থতাকারী ব্রিটিশ নারী ব্যবসায়ী অ্যামান্ডা স্টেভলির সঙ্গে নিউক্যাসলের ব্যাপারে আলোচনা এগিয়ে নিতে ব্যর্থ হন অ্যাশলে। বেশ তিক্ততার মধ্য দিয়েই সে পর্বের ইতি টানে দু'পক্ষ।

তবে, করোনা পরিস্থিতিতে খেলা বন্ধ থাকায় বড় লোকসানের আশঙ্কায় আবারো মালিকানা ছেড়ে দিতে তৎপর হয়ে উঠেছেন অ্যাশলে। এবার আগ্রহীদের তালিকায় সবচেয়ে বেশি শোনা যাচ্ছে, সৌদি আরবের প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের অধীনস্থ প্রতিষ্ঠান পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড পিআইএফের নাম। ৮০ শতাংশ শেয়ার থাকবে এই ফান্ডের। এছাড়া স্টেভলির কোম্পানি পিসিপি ক্যাপিটাল পার্টনারস আর ব্যবসায়ী সহোদর ডেভিড ও সাইমন রুবেন থাকবেন অংশীদার হিসেবে। এসব খবরের মাঝে নতুন শুরুর স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে সমর্থকগোষ্ঠী।

নিউক্যাসল ইউনাইটেডের সমর্থক গোষ্ঠীর প্রধান অ্যালেক্স হার্স্ট বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এই ক্লাব ব্যক্তি স্বার্থেই ব্যবহৃত হয়েছে। নতুন মালিকের ক্ষেত্রে সেটা আমরা হতে দেবোনা। আমরা এটা আশা করছিনা যে, দায়িত্ব নিয়েই তারা ম্যানচেস্টার সিটির মতো রাতারাতি সব বদলে দেবে, দল চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জিতে যাবে। বরং আমরা চাই স্থিতিশীলতা আসুক, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য থাকুক, সঠিক পথে এগিয়ে যাক নিউক্যাসল ইউনাইটেড।

গুঞ্জন সত্যি হলে ক্লাবের চেয়ারম্যান করা হবে সৌদি আরবের পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের গভর্নর এবং সৌদি আরামকো ও উবার সহ স্বনামধন্য কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত থাকা ইয়াসির আল রুমায়য়ানকে। স্টিভ ব্রুসকে সরিয়ে নতুন কোচ হিসেবে আনা হতে পারে ম্যাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রি, মৌরিসিও পচেত্তিনো কিংবা রাফা বেনিতেজের মতো হাইপ্রোফাইল কাউকে। খেলোয়াড় তালিকাতেও যোগ হবে বড় তারকাদের নাম। এরইমধ্যে গুঞ্জন উঠেছে, ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী দুই ফরোয়ার্ড আতোয়াঁ গ্রিজম্যান আর কিলিয়ান এমবাপ্পে আছেন তাদের টার্গেটে।


ঢাকা, মঙ্গলবার, এপ্রিল ২১, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৬৭৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন