সর্বশেষ
শনিবার ১৮ই আষাঢ় ১৪২৯ | ০২ জুলাই ২০২২

অলৌকিক আওয়াজ শুনতে পেতেন সুশান্ত

বুধবার, জুন ১৭, ২০২০

sushant-singh-rajput.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। ছাত্র হিসেবে ছিলেন মেধাবী। তবে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়া শেষ না করেই নাম লেখান শোবিজ অঙ্গনে। টিভি ধারাবাহিকের পর বড় পর্দাতেও সফল। ক্যারিয়ারে একের পর এক ব্যবসাসফল ও দর্শকপ্রিয় সিনেমা উপহার দিচ্ছিলেন সুশান্ত। কিন্তু রোববার (১৪ জুন) মাত্র ৩৪ বছর বয়সেই আত্মহত্যার পথ বেছে নেন এই অভিনেতা।

এই অভিনেতার মত্যু কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না ভক্ত, সহকর্মী ও ঘনিষ্ঠজনরা। সকলের মনেই প্রশ্ন— কেন আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন সুশান্ত?

জানা যায়, হতাশায় ভুগছিলেন সুশান্ত। শুধু তাই নয়, অলৌকিক কণ্ঠস্বর শুনতে পাচ্ছিলেন। এমনটাই জানিয়েছেন লেখিকা সুহরিতা সেনগুপ্ত। তিনি মনে করেন, সুশান্তের বিষয়টি অনেকটা অভিনেত্রী পারভিন ববির মতোই ছিল। তিনি বলেন, ‘সুশান্ত মহেশ ভাট সাহেবের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন, সম্ভবত সড়ক-টু সিনেমার বিষয়ে কথা বলতে। তারা গল্প করতে শুরু করেন, কারণ সুশান্ত অনেক কথা বলতেন। সৌরজগতের সব বিষয়ে তার জানা। সিনেমার পাশাপাশি কোয়ান্টাম ফিজিক্স নিয়েও আলোচনা করতে পারতেন সুশান্ত।’

কিন্তু এত কিছুর মধ্যে সুশান্তের মনের ভেতর লুকানো কষ্ট মহেশ ভাট উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন বলে জানান এই লেখিকা। তিনি বলেন, ‘তিনি পারভিন ববির মধ্যে বিষয়টি লক্ষ্য করেছিলেন এবং ভালো করেই জানতেন, চিকিৎসার বিকল্প নেই। রিয়া চক্রবর্তী চেষ্টা করেছিলেন ওষুধের মাধ্যমে যেন দ্রুত সুশান্তকে সুস্থ করে তোলা যায়। নিয়মিত ওষুধ খাচ্ছেন কিনা খোঁজ নিতেন। কিন্তু সুশান্ত ওষুধ খেতে চাইত না।’

এদিকে নিয়মিত ওষুধ না খাওয়ার ফলে সুশান্ত আরো হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন এবং নানা অলৌকিক আওয়াজ শুনতে পেতেন। সুহরিতা বলেন, “গত এক বছর সুশান্ত সকলের কাছ থেকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেন। রিয়া তার পাশে ছিলেন। কিন্তু, অলৌকিক কণ্ঠস্বর শুনতে পেতেন সুশান্ত। মনে করছিলেন, কেউ তাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করছেন। একদিন রিয়া ও সুশান্ত দু’জন মিলে অনুরাগ কাশ্যপের একটি সিনেমা দেখছিলেন। হঠাৎ সুশান্ত রিয়াকে বলে, ‘আমি কাশ্যপের একটি সিনেমা করতে রাজি হইনি, এখন তিনি আমাকে মেরে ফেলবে।’ এটি শুনে রিয়া ভীষণ ভয় পেয়েছিল এবং তার সঙ্গে থাকতে ভয় পেত।”

এরপর সুশান্ত ও রিয়ার দূরত্ব তৈরি হয় জানিয়ে এই লেখিকা বলেন, ‘তার কোনো উপায় ছিল না। ভাট সাহেব তাকে জানিয়েছিলেন, রিয়া কিছু করতে পারবে না। সুশান্তের সঙ্গে থাকলে রিয়াও মানসিক প্রশান্তি হারিয়ে ফেলবে। সুশান্তের বোন মুম্বাইয়ে আসা পর্যন্ত রিয়া অপেক্ষা করেছে। এই অভিনেতার বোনও সুশান্তকে অনেকভাবে বোঝানোর চেষ্টা করেছে। কিন্তু তিনি কারো কথা শুনতেন না। এমনকি ওষুধও খেতেন না।’


ঢাকা, বুধবার, জুন ১৭, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ২৭৫৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন