সর্বশেষ
বুধবার ১১ই অগ্রহায়ণ ১৪২৭ | ২৫ নভেম্বর ২০২০

মেকআপের সময় সতর্ক থাকুন

বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৬, ২০২০

111.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

মেকআপ এমন একটি জিনিস যা আপনাকে একেবারে, একটি অন্য মানুষ করে তুলতে পারে। আপনি যা না, তা আপনাকে বানাতে পারে। মেকআপের মাধ্যমে আপনি চেহারার খুঁত ঢাকতে পারেন। চেহারা পরিবর্তন করতে পারেন। তবে মেকআপ করতে গিয়ে প্রায়ই কিছু ছোটখাটো ভুল করে ফেলি আমরা। কয়েক ধরনের ভুল মেকআপের জন্য আপনাকে বয়সের চেয়ে অনেক বেশি বড় দেখাতে পারে। তাই মেকআপ করার সময় কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে, চলুন দেখা যাক-

ভুল ফাউন্ডেশন
অনেকেই মনে করেন, ফাউন্ডেশন যত কম লাগানো যায়, তত ভালো। কিন্তু সেটা ভুল ধারণা। সবচেয়ে নিখুঁত স্কিনটোনেও গোটা মুখের কিছু অংশে। পিপমেন্টেশনের সমস্যা থাকতেই পারে। এই সমস্যা খুবই স্বাভাবিক। এর সমাধান ফাউন্ডেশন। তবে প্রতিদিন খুব গাঢ় শেডের ফাউন্ডেশন না লাগানোই ভালো। কেকি টেক্সচার হয়ে গেলে চেহারায় বয়সের ছাপ বোঝা যায়। তাই সারা দিনের জন্য বেরোনোর থাকলে টিন্টেড ময়েশ্চারাইজার, বিবি বা সিসি ক্রিম অথবা কুশন ফাউন্ডেশন ব্যবহার করতে পারেন। আরেকটা মারাত্মক ভুল, ফাউন্ডেশনের ঠিক শেড না বাছা। গায়ের রঙের সঙ্গে রং, মিলিয়ে ফাউন্ডেশন কেনাটা খুব জরুরি।

অতিরিক্ত কনসিলার
যারা কনট্যুরিং করতে পছন্দ করেন, তারা কনসিলার শুধু দাগ-ছোপ লুকোতেই ব্যবহার করেন না। কনট্যুর করতে অনেকে বেশি পরিমাণে কনসিলার লাগিয়ে ফেলেন। যতই ভালো করে ফাউন্ডেশনের সঙ্গে মিলিয়ে দিন, কয়েক ঘণ্টা পর পার্থক্যটা ফুটে উঠবেই। এতে চোখের তলার সূক্ষ্ম দাগগুলো আরও পরিষ্কারভাবে দেখা যাবে।

ব্লাশের ভুল ব্যবহার
গালের যে অংশটাকে অ্যাপল বলে, ব্লাশ শুধু সেই অংশেই লাগানো উচিত। কিন্তু অনেকেই না জেনে আরও নীচের দিকে ব্লাশ লাগিয়ে ফেলেন। প্রায় পুরো গালেই। এতে চেহারা বিদঘুটে তো লাগেই, বয়সও এক ঝটকায় অনেকটা যেন বেড়ে যায়। তাই সঠিক মেকআপ ব্লাশের সাহায্যে গালের ঠিক জায়গায় ব্লাশ লাগান। প্রয়োজনে বিউটি এক্সপার্টের পরামর্শ নিতে পারেন।

গ্রাফিক আইলাইনার
মোটা করে কাজল পরা বা আইলাইনারের সাহায্যে বেশ বড় করে চোখ আঁকা র‍্যাম্পের ‘হট’ মেকআপ ট্রেন্ড। কিন্তু কতটা মানাবে, তা না যাচাই করে গ্রাফিক আইলাইনার না পরাই ভালো। অনেকের চোখের আকার এমন হয় যে, বেশ মোটা করে আইলাইনার পরলে বয়স বেশি লাগে। তাদের সরু রেখা টানাই ভালো। শুধু চোখের নীচের পাতায় কাজল পরলেই হবে না। উপরের পাতার ভেতর দিকেও যদি কাজল পরতে পারেন, তাহলে চেহারা অনেক ঝকঝকে লাগবে।

ভুরুর দিকে নজর না দেওয়া
বয়সের সঙ্গে ভুরু পাতলা হয়ে আসে। সেগুলো ভালো করে গ্রুম করে আইব্রো পেনসিলের সাহায্যে এঁকে নেওয়া প্রয়োজন। নয়তো চেহারায় তারুণ্যের ছাপ চোখে পড়বে না। তবে মনে রাখবেন, মানুষের দু’টো ভুরু দু’রকম হওয়াটাই স্বাভাবিক। তাই দু’টো ভুরু একই রকম আঁকা না হলে অযথা চিন্তা করবেন না।

ভুল রঙের লিপলাইনার
লিপস্টিক লাগানোর আগে লিপকালার দিয়ে ঠোঁটের আউটলাইন এঁকে নিলে লিপস্টিক লাগাতে সুবিধে হয় আর ঠোঁটও বেশি ভরাট দেখায়। কিন্তু লিপকালাকের চেয়ে লিপলাইনারের শেড যদি বেশি গাঢ় হয়ে যায়, তাহলে মুশকিল। এক নিমেষে বয়সটা অনেক বেড়ে যায়। তাই লিপকালারের সঙ্গে লাইনারের রং ভালো করে মিলিয়ে নিন। যদি একই রঙের লাইনার না পাওয়া যায়, তাহলে ঠোটের রঙ্গের একটা লাইনার লাগাতে পারেন। সূত্র - লুক অ্যাট মি


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৬, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৭১৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন