সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২০শে শ্রাবণ ১৪২৭ | ০৪ আগস্ট ২০২০

আজ পবিত্র ঈদুল আজহা

শনিবার, আগস্ট ১, ২০২০

555.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

আজ শনিবার (১ আগস্ট) পবিত্র ঈদুল আজহা। যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের অন্যতম প্রধান এ ধর্মীয় উৎসব। মহান আল্লাহর অপার অনুগ্রহ লাভের আশায় ঈদুল আজহার নামাজ শেষে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা তাদের সামর্থ অনুযায়ী পশু কোরবানি করবেন।

বৈশ্বিক মহামারি করোনা ও দেশের বেশকিছু জেলায় বন্যার কারণে এ বছরের ঈদুল আজহায় মানুষের মধ্যে তেমন উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যায়নি। তবে সামর্থানুযায়ী আল্লাহর পথে কোরবানি করার জন্য অনেকেই পশু কিনেছেন। যা তারা শনিবার প্রথম দিনসহ আগামী তিনদিন কোরবানি করবেন।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে দেশবাসীসহ বিশ্বের সব মুসলিম ভাইবোনদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেওয়া এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘মহান আল্লাহর প্রতি গভীর আনুগত্য ও সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর ঈদুল আজহা। আজহা অর্থ কোরবানি বা উৎসর্গ করা। করোনা মোকাবিলায় সবাইকে সচেতন হতে হবে এবং জীবনযাপনে ও চলাফেরায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। নিজে সুস্থ থাকি, অন্যকেও সুস্থ রাখি- এটাই হোক এবারের ঈদুল আজহার সবার অঙ্গীকার। ’

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘মহান আল্লাহর কাছে কোরবানি কবুল হওয়ার জন্য শুদ্ধনিয়ত ও উপার্জন থাকা আবশ্যক। পাশাপাশি সবাইকে সরকার নির্ধারিত স্থানে কোরবানি দেওয়া ও কোরবানির বর্জ্য অপসারণসহ পশুক্রয় থেকে শুরু করে প্রতিটি কার্যক্রম করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে করতে সচেষ্ট থাকবেন বলে আমি আশা রাখি। ঈদুল আজহা সবার জন্য বয়ে আনুক কল্যাণ, সবার মধ্যে জেগে উঠুক ত্যাগের আদর্শ, মহান আল্লাহর কাছে এ প্রার্থনা করি। ’

তিনি বলেন, ‘এ বছর এমন একটা সময়ে ঈদুল আজহা অনুষ্ঠিত হচ্ছে যখন মহামারি করোনার ছোবলে সারাবিশ্ব বিপর্যস্ত। বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে অনেক মানুষই মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এসব মানুষের কল্যাণে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সবাইকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। ’

ঈদুল আজহায় ত্যাগের মহিমায় উজ্জীবিত হয়ে দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে সবাইকে আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও বার্তায় বলেন, বছর ঘুরে আমাদের মাঝে আবার এসেছে ঈদুল আজহা। করোনা মহামারির এ দুঃসময়ে সব আঁধার কাটিয়ে ঈদুল আজহা আমাদের জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল আনন্দ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আসুন, কোরবানির ত্যাগের মহিমায় উজ্জীবিত হয়ে দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে আত্মনিয়োগ করি। দেশ ও দেশের বাইরে অবস্থানরত সব বাংলাদেশি ভাই-বোনকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। করোনা ভাইরাসরোধে সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, সুস্থ থাকুন, নিরাপদ থাকুন, ঈদ মোবারক। ’

ঈদ উপলক্ষে শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে তিনদিনের সরকারি ছুটি। প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে বরাবরের মতো এবারও রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন বড় শহর থেকে অগণিত মানুষ নাড়ির টানে গেছেন গ্রামের বাড়িতে। যদিও এবার করোনা ভাইরাসের কারণে সরকারের পক্ষ থেকে মানুষকে যার যার অবস্থানে ঈদ করার আহ্বান জানানো হয়েছিল। তারপরও বহু মানুষ নিজ নিজ গ্রামের বাড়িতে ঈদ করার জন্য ঢাকা ছেড়েছেন।

ঈদ উপলক্ষে বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার ও বেসরকারি গণমাধ্যমগুলো যথাযোগ্য গুরুত্ব সহকারে বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করছে।

ঈদ উপলক্ষে দেশের সব সরকারি হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, বৃদ্ধ নিবাস ও মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে।

মুসলিম সম্প্রদায়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম এ ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারাও দেশবাসীকে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। একইসঙ্গে সবাই করোনা মহামারি ও বন্যার কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।


ঢাকা, শনিবার, আগস্ট ১, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ১৬৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন