সর্বশেষ
শনিবার ৮ই কার্তিক ১৪২৮ | ২৩ অক্টোবর ২০২১

চরভদ্রাসনে পানিতে ডুবে দুই ভাই-বোনের অকাল মৃত্যু

শুক্রবার, আগস্ট ২১, ২০২০

21.jpg
ফরিদপুর প্রতিনিধি :

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার আমিরের ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় ভূবনেশ্বর নদীতে ডুবে দুই ভাই-বোনের অকাল মৃত্যু হয়েছে।

গত বুধবার সন্ধ্যা ৬ টার দিকে নদী পার হওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। নিহত অমি আক্তার (১৫) স্থানীয় চরভদ্রাসন পাইলট উচ্চ বিদ্যালযের নবম শ্রেনীর ছাত্রী এবং তার ভাই তামীম হোসেন (১০) স্থানীয় আলহেরা কিন্ডার গার্টেনের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। তারা উভয়েই সদর উপজেলার উত্তর আলমনগর এলাকার সৌদি প্রবাসী শেখ রাসেলের সন্তান।

জানা যায়, বুধবার বিকালে দুই ভাই-বোন  নিজ বাড়ী থেকে নদীর ওপার আব্দুল সিকদার ডাঙ্গী গ্রামে নানা বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওনা হয়। তারা ভুবনেশ্বর নদী দিয়ে তাফাল (টিনের তৈরি ছোট নৌকা) চড়ে পার হচ্ছিল। পার হওয়ার সময় প্রচন্ড বাতাসে তাফাল উল্টে গিয়ে তারা দুই ভাই বোন নিখোঁজ হয়। তাৎক্ষনিকভাবে স্থানীয়রা পানিতে নেমে খোঁজাখুঁজি করে অমি আক্তার (১৫) মরদেহ উদ্ধার করে। কিন্তু তামিম হোসেনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। পার্শ্ববর্তী সদরপুর উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নদীতে তামিম হাসানকে উদ্ধারে তল্লাশী শুরু করে। কিন্তু সারা রাতেও তার লাশ পাওয়া যায়নি। পরের দিন সকাল ১০ টার দিকে স্থানীয় ডুবুরী আঃ খালেক নদীর তলদেশ থেকে মৃত তামীমের লাশ উদ্ধার করে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোঃ ইমদাদুল হক তালুকদার, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজনিন খানম ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান আজাদ খান।

এদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেসমিন সুলতানা জানান, পানিতে পরে মৃত দুই ভাই-বোনের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছে।এর আগে পানিতে পরে নিহত রবিন মেল্যার পরিবারকেও অনুদান দেওয়া হবে।

পানিতে ডুবে একসাথে দুই ভাই বোনের মৃত্যুতে এক জনের লাশ না পাওয়ায় আমিরের ব্রিজ এলাকায় চাঞ্চ্যল্যকর পরিবেশ তৈরী হয়।শোকের অন্ধকার নেমে আসে পুরো এলাকায়।


ঢাকা, শুক্রবার, আগস্ট ২১, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // উ জ এই লেখাটি ৯৮৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন