সর্বশেষ
শুক্রবার ১৫ই কার্তিক ১৪২৭ | ৩০ অক্টোবর ২০২০

পেঁয়াজ আমদানিতে শুল্ক কমানোর বিবেচনা: অর্থমন্ত্রী

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০

11.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রাখার স্বার্থে আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহারের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।যদি রাজস্ব খাতে কোনো কিছু করার থাকে অবশ্যই ছাড় দেওয়া হবে। অতিতেও বিবেচনা করা হয়েছে এখনও বিবেচনা করা হবে।

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা জানান তিনি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষের কঠোর পরিশ্রম করার কারণেই করোনা মহামারি সত্ত্বেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে যা এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক-এডিবির প্রতিবেদনে প্রতিফলিত হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, এডিবি তো সারা বছরই কাজ করে। আর আমরা করি বছরে একবার। তারা বছরে একাধিকবার করে। তারা আমাদের সম্পর্কে খারাপ বলেনি ভালোই বলেছে। আমরা কাজ শুরু করেছি। তারা বলেছে আমাদের জিডিপির প্রবৃদ্ধি ছয় দশমিক আট হবে। এডিবি তাদের ওভারভিউতে বলেছে, বাংলাদেশ ধীরে হলেও শুরু করেছে। আমরা ধীরে হলেও এগিয়ে যাচ্ছি। আমাদের যেতে হবে অনেক দূর। সবাইকে সঙ্গে নিয়ে আমরা সে কাজটি করবো। আমরা পাঁচ দশমিক দুই গতবছর বলেছিলাম। সেটা আমরা পাঁচ দশমিক ২৪ অর্জন করেছি। এবছর আমাদের আশা গতবছর আমরা যেটা করতে পারিনি আট দশমিক দুই শতাংশ। তবে এবছর আমাদের আশা বাজেটে যে প্রক্ষাপণ করা হয়েছে সেটা অর্জন করতে পারবো।  সেস্বপ্ন পূরণ করতে আমরা কাজ করছি। দেশের সব মানুষ তাদের সব কিছু উজার করে দিয়ে এ দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা ছয় দশমিক আট শতাংশ জিডিপির প্রবৃদ্ধি যদি করতে পারি তাহলে আমরা সাউথ এশিয়া না সাউথ ইস্ট এশিয়ার সব দেশের মধ্যে আমরা তিন নম্বরে থাকবো। আর গত বছর যেটা ছিল পাঁচ দশমিক ২৪ সেটাও এ অঞ্চলের মধ্যে সবার উপরে। এখন এবছরও ছয় দশমিক আট সেটা বিবেচনা করেন তাহলে আমাদের উপরে থাকে মাত্র ভারত আর চীন। আমি মনে করি আমরা ভালোভাবে এগুচ্ছি। এটি আমাদের জন্য কম অর্জন নয়।

আ হ ম মুস্তফা কামাল আরও জানান, সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে প্রায় দুই হাজার ৫শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬টি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে নারায়ণগঞ্জের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে বর্জ্য থেকে উৎপাদিত বিদ্যুৎ ক্রয় প্রকল্প। ২০ বছর মেয়াদী এই প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় এক হাজার ৬শ’ কোটি টাকা। এছাড়াও, রাশিয়া থেকে ২লাখ মেট্রিক টন গম আমদানি করবে, সরকার। এতে ব্যয় হবে ৪৩৭ কোটি ৪৭ লাখ টাকা।


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এস বি এই লেখাটি ৩২৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন