সর্বশেষ
শুক্রবার ২০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৭ | ০৪ ডিসেম্বর ২০২০

একদমই খাবেন না ঘুমাতে যাওয়ার আগে যেসব খাবার

শুক্রবার, নভেম্বর ২০, ২০২০

23.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ঘুম মানুষের শরীরের সমস্ত ক্লান্তি দূর করে। রাত হলে সময় মতো বিছানায় যান ঠিকই কিন্তু ঘুম আসে না কিছুতেই। ঘুম আসে না এমন সমস্যা অনেক মানুষকেই ভুগতে দেখা যায়। আর এই ঘুমের সমস্যা থেকে দেখা দিতে পারে নানা রোগ এমন আভাস দিয়েছে গবেষকরা। তবে ঘুম না আসার জন্য দায়ী বিষয়গুলোর মধ্যে রয়েছে খাবারের তালিকাও।

 

সুস্থ শরীরের চাবিকাঠি হলো ঘুম। অনেকেই ঘুমানোর জন্য ঘুমের ওষুধের আশ্রয় নিয়ে থাকেন। কিন্তু ঘুমের ওষুধের প্রতি অতিরিক্ত নির্ভরশীলতা শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হতে পারে। ঘুম ঠিকমতো না হলেই মেজাজ খিটখিটে, কাজে মন নেই, খেতে অনীহা। সারা দিনটাই মাটি।এক জরিপে দেখা গেছে, বিশ্বের মোট জনসংখ্যার প্রায় ৪৫ শতাংশ ঘুমজনিত সমস্যায় ভোগে। ঘুমে সমস্যা হলে সেখান থেকে দেখা দিতে পারে আরও অনেক রোগ। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী, একজন প্রাপ্ত বয়স্ক ও সুস্থ মানুষের অন্তত সাত ঘণ্টা ঘুমানো উচিত। ঘুমের ক্ষেত্রে একটি নির্দিষ্ট রুটিন মেনে চলা উচিত। এমন কিছু খাবার আছে যা ঘুমের আগে খাওয়া একদমই উচিত নয়। কারণ ঘুমাতে যাওয়ার আগে যদি এমন খাবার খান, যা আপনার ভালো ঘুমের জন্য সহায়ক নয়, তখন ঘুমে সমস্যা হবেই।

কফি ও মিষ্টি:

মিষ্টিজাতীয় খাবার দেখে যতই খেতে ইচ্ছে করুক, ঘুমের আগে খেতে যাবেন না যেন। আইসক্রিম, চকোলেট, ক্যান্ডিবার ইত্যাদিতে ফ্যাট রয়েছে। ঘুমানোর আগে ফ্যাটযুক্ত কোনো খাবার খাবেন না। একবাটি দুধে কর্নফ্লেক্স মিশিয়ে খাওয়া সকালে আদর্শ নাস্তা হতে পারে, কিন্তু ঘুমাতে যাওয়ার আগে নয়। অতিরিক্ত কার্বোহাইড্রেট ঘুম আসার পক্ষে বাধা হতে পারে। কফির মতো চকোলেটও ঘুম নষ্ট করে।

শাকসবজি, চিপস ও স্ন্যাকস: 

সবুজ শাকসবজিতে যেমন দেহের পুষ্টি হয়, তেমনই শাকসবজিতে থাকে প্রচুর ফাইবার যা ধীরে পরিপাক হয়, ফলে ঘুম আসতে দেরি হয়। ভাজাভুজিতে প্রচুর পরিমাণে মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট থাকে যা ঘুমে সমস্যা তৈরি করে। চিপস, ভুট্টা, ভাজাপোড়া খাবার বা এ ধরনের বিভিন্ন খাবার বাইরে থেকে এনে খাবেন না। এতে আপনার কোনো উপকার তো হবেই না, আরও শারীরিক সমস্যা দেখা দিবে। পাশাপাশি, পাস্তা বা পিৎজা এ ধরনের খাবারগুলো কিন্তু অত্যন্ত ফ্যাটি গোত্রীয়। এটা ঘুমের সময় দেহের ওজন বাড়িয়ে দেয়। ঘুমের সময় হৃদস্পন্দন অনিয়মিত করতে পারে। ঘুমের আগে তাই এ সব না খাওয়াই ভালো।

মাংস ও পাস্তা:

রাতে ঘুমানোর আগে মাংস না খাওয়া সবচেয়ে ভালো। পাস্তা অত্যন্ত ফ্যাটি খাবার। ঘুমের সময় দেহের ওজন বাড়িয়ে দেয়। ঘুমের আগে ঘরে তৈরি হালকা খাবার খাওয়াই ভালো। কারণ ঝাল বা রিচ খাবার আপনার শরীরে অস্বস্তির কারণ হতে পারে। তাতে ঘুম ভালো হবে না।

অ্যালকোহল: 

ঘুমের শত্রু অ্যালকোহলও। কারণ এটা শরীরের বিএমআর বাড়িয়ে দেয়। এতে একদিকে আছে কার্বোহাইড্রেট, অন্যদিকে ক্যালোরি। ফলে ঘুম আসার পক্ষে অন্তরায়। ঘুমানোর আগে অ্যালকোহল খেলে অনেকে ভাবেন ঘুম ভালো হয়৷ কিন্তু বিষয়টি সে রকম নয়৷ অ্যালকোহল রক্তের মাধ্যমে মস্তিষ্কে পৌঁছায়৷ এবং তার ফলে মস্তিষ্কের নার্ভ শিথিল হয়৷ এতে ঘোর এবং ঘুম আসে৷ কিন্তু সমস্যা হলো এই ঘুমে শরীরকে কোনো রকম বিশ্রাম দেয় না৷ আপনি ঘুমালেও সারারাত আপনার শরীর চেষ্টা করে যায় আপনার শরীর থেকে অ্যালকোহল বের করতে৷ তার ফলে আপনার পরদিন ঘুম ভাঙবে মাথা ব্যথা, তেষ্টা বা শারীরিক অস্বস্তি নিয়ে৷

ধূমপান:

ধূমপানও ঘুমের বড় শত্রু৷ আপনি যদি ভাবেন ঘুমানোর আগে একটি সিগারেট খেলে আপনার মস্তিষ্ক রিল্যাক্স করবে এবং আপনি ঘুমোতে পারবেন তাহলে আপনি ভুল ভাবছেন৷ তামাকের নিকোটিন আমাদের ঘুমের শত্রু৷ এটি আমাদের মস্তিষ্ককে অতিরিক্ত কার্যকর করে রাখে৷ তাই যত বেশি আপনি তামাক সেবন করবেন তত বেশি আপনার ঘুম নষ্ট হবে৷ 


ঢাকা, শুক্রবার, নভেম্বর ২০, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এস বি এই লেখাটি ৫৪৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন