সর্বশেষ
বুধবার ১৪ই মাঘ ১৪২৭ | ২৭ জানুয়ারি ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রে ডিসেম্বরেই টিকা দেওয়ার দিনক্ষণ চূড়ান্ত

সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০২০

014.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

করোনার টিকা আবিষ্কারের সঙ্গে সঙ্গে তা সাধারণ নাগরিকদের দেয়ার দিনক্ষণও ঠিক করে ফেলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ। করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় দফার সংক্রমণ তীব্র হওয়ার প্রেক্ষাপটে সর্বশেষ এ সুখবর দিল যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও জার্মানির পরিকল্পনা ডিসেম্বর মাসেই  তাদের দেশের নাগরিকদের করোনার টিকা দেওয়ার। আর স্পেনের পরিকল্পনা তারা তাদের নাগরিকদের টিকার আওতায় নিয়ে আসতে চায় আগামী বছরের একদম শুরুতে অর্থাৎ আগামী জানুয়ারি থেকে নাগরিকদের টিকা দেওয়া শুরু করবে দেশটি।

রোববার দেশটির সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের একজন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এ খবর জানান।

এর আগে শুক্রবার মার্কিন কোম্পানী ফাইজার ও তার জার্মান অংশীদার বায়োএনটেক তাদের তৈরি টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন চেয়ে আবেদন করেছে। এছাড়া মার্কিন কোম্পানী মর্ডানা তাদের টিকা ৯৫ শতাংশ কার্যকর বলে দাবি করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের টিকাদান কর্মসূচির প্রধান মুনসেফ সালোয়ি সিএনএনকে বলেছেন, ইউএস ফুড এন্ড ড্রাগ এডমিনিস্ট্রেশান(এফডিএ) অনুমোদন দেয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যে টিকা দান কেন্দ্রগুলোতে টিকা পৌঁছানোর পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

সালেয়ি টিকা দেয়ার কাজ শুরুর নির্দিষ্ট দিনক্ষণও জানান। ডিসেম্বরের ১১/১২ তারিখ থেকে টিকা দেয়া শুরু হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। ফাইজারের টিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে এফডিএ’র ভ্যাকসিন উপদেষ্টারা ১০ ডিসেম্বর বৈঠকে বসবেন। সালোয়ি জানান, ডিসেম্বরেই প্রায় ২ কোটি লোককে টিকা দেয়া হবে। এর পর প্রতি মাসে ৩ কোটি লোককে পর্যায়ক্রমে টিকার আওতায় নেয়া হবে।

যুক্তরাজ্যের টেলিগ্রাফের খবর, ১ ডিসেম্বর থেকেই সাধারণ নাগরিকদের টিকার আওতায় নিয়ে আসার জন্য দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা বিভাগকে প্রস্তুত থাকতে বলেছে ব্রিটিশ সরকার। ব্রিটিশ সরকার আগে থেকেই ফাইজার ও বায়োনটেকের টিকার বিষয়ে সার্বক্ষণিক খোঁজ রাখার নির্দেশ দিয়েছিল। এবার দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ জানাল কবে নাগাদ তারা টিকাটি হাতে পাবে। 

যুক্তরাজ্য ৪ কোটি ডোজের ক্রয়াদেশ দিয়ে রেখেছে এবং আশা করছে আগামী মাসের মধ্যে অন্তত কোটি ডোজ হাতে পাবে যা দেশটির অন্তত ৫০ লাখ মানুষকে করোনার ছোবল থেকে রক্ষা করবে।

জার্মানিও আগামী মাসে তাদের নাগরিকদের টিকা দিতে প্রস্তুত। রোববার (২২ নভেম্বর) এমন আশার কথা জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেনস স্ফেন। তিনি জানিয়েছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশের মধ্যে জার্মানি ও স্পেন প্রথম করোনার টিকাদান কর্মসূচির আওতায় আসতে চায়।

আর স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ রোববার (২২ নভেম্বর) জানিয়েছেন, জানুয়ারি থেকে সমন্বিতভাবে করোনার টিকা প্রয়োগের জন্য প্রস্তুত তার দেশ। এবং এরপর তিন মাসের মধ্যে দেশটির সব নাগরিককে এই টিকার আওতায় নিয়ে আসার প্রস্তুতিও রয়েছে আর জানুয়ারিতে ১৩ হাজার স্পট থেকে টিকা দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। 

অন্যদিকে ধনী-গরিব নির্বিশেষে সব দেশের নাগরিক যেন সময়মতো করোনাভাইরাসের টিকা পায় সদ্য সমাপ্ত জি-২০ সম্মেলনের অংশ নিয়ে এমন প্রতিশ্রুতির কথা জানিয়েছেন বিশ্বনেতারা। তাদের আশঙ্কা, সবার জন্য কোভিড পরীক্ষা, ওষুধ ও টিকার সহজপ্রাপ্তি নিশ্চিত করা না গেলে বিশ্বজুড়ে বাড়বে ধনী-গরিবের ব্যবধান। 


ঢাকা, সোমবার, নভেম্বর ২৩, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এস বি এই লেখাটি ৭০৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন