সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ৬ই কার্তিক ১৪২৮ | ২১ অক্টোবর ২০২১

মাদ্রাসার ২ ছাত্র ও ২ শিক্ষক রিমান্ডে : ভাস্কর্য ভাঙচুর

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২০

211.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

কুষ্টিয়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার দুই ছাত্রের পাঁচ দিন ও দুই শিক্ষকের চার দিন রিমান্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টায় কুষ্টিয়ার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এনামুল হকের আদালত শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আগে আটক চারজনকে সোমবার (০৭ ডিসেম্বর) আদালতে সোপর্দ করে ছাত্রদ্বয়ের ১০ দিন এবং শিক্ষকদ্বয়ের সাতদিন করে রিমান্ড আবেদন করে কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশ। দুপুর দেড়টায় কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল আমলি আদালতের বিচারক রেজাউল করীমের আদালতে আসামিদের উপস্থিত করে পুলিশ রিমান্ড আবেদন করলে আদালত তাদের রিমান্ড শুনানির দিন মঙ্গলবার (০৮ ডিসেম্বর) ধার্য করে আসামিদের জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে রোববার রাতে পৌরসভার সচিব কামাল উদ্দিন বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন ১৫-এর ৩ ধারায় নাশকতা ও অন্তর্ঘাতমূলক অপরাধে তাদের আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ।

এ মামলায় যাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে তারা হলেন: কুষ্টিয়া শহরের জুগিয়া পশ্চিমপাড়া ইবনে মাসউদ (র.) মাদ্রাসার ছাত্র আবু বক্কর (১৯) ও মো. সবুজ ইসলাম নাহিদ (২০) মাদ্রাসার দুই শিক্ষক মো. আলামিন (২৭) ও মো. ইউসুফ আলী।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ২টার দিকে কুষ্টিয়ার শহরের পাঁচ রাস্তার মোড়ে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ডান হাত ও মুখের কিছু অংশ ভেঙে ফেলা হয়। পরে সিসিটিভির ফুটেজের সাহায্যে ভাঙচুরে জড়িত দুই মাদ্রাসা ছাত্রকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে দুই ছাত্রকে পালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়ার অভিযোগে একই মাদ্রাসার দুই শিক্ষককেও গ্রেফতার করা হয়।


ঢাকা, মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এস বি এই লেখাটি ১০৯৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন