সর্বশেষ
মঙ্গলবার ৬ই মাঘ ১৪২৭ | ১৯ জানুয়ারি ২০২১

ইন্দোনেশিয়ার বিমানের ধ্বংসাবশেষ শনাক্ত, উদ্ধারে অভিযান

রবিবার, জানুয়ারী ১০, ২০২১

20.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তা থেকে ৬২ জন যাত্রী নিয়ে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া সিরিউয়িজায়া এয়ারের বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি জাভা সাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। উড্ডয়নের চার মিনিট পরেই নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।  

রোববার (১০ জানুয়ারি) সাগর থেকে শ্রীবিজয়া এয়ারের বেশকিছু ধ্বংসাবশেষ ও বিমানের টুকরো পাওয়ার দাবি করেছে উদ্ধারকারীরা। কর্মকর্তাদের বিশ্বাস সেগুলো নিখোঁজ বিমানের ধ্বংসাবশেষ। মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

শনিবার ১০ হাজার ফুট উচ্চতা থেকে যাত্রীবাহী বিমানটি নিখোঁজ হওয়ার কিছুক্ষণ পরই জাভা সাগরে আছড়ে পড়ে। সাগরে বিমানের সন্ধান ও নিখোঁজ উদ্ধারে চলছে তৎপরতা। রাতভর অভিযানের ফলে বিমানটি যে জায়গা ধ্বংস হয় ওই এলাকা শনাক্ত করা গেছে। তারপরও উদ্ধারকারীদের চোখে ঘুম নেই। হেলিকপ্টার-জাহাজ নিয়ে নিখোঁজদের উদ্ধারে আপ্রাণ চেষ্টা চালানো হচ্ছে।  

ফ্লাইট তদারকি ওয়েবসাইট ফ্লাইটরাডার২৪.কম জানিয়েছে, এক মিনিটেরও কম সময়ের মধ্যে বিমানটি তিন হাজার মিটার উচ্চতা হারায়। দেশটির পরিবহন মন্ত্রণালয় জানায় স্থানীয় সময় দুইটা ৪০ মিনিটে বিমানটির সঙ্গে সর্বশেষ যোগাযোগ করা সম্ভব হয়।

ভারী বৃষ্টির মধে উড্ডয়নের চার মিনিটের মাথায় ২৬ বছরের পুরনো বিমানটি হারিয়ে যায়। ইন্দোনেশিয়ার সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ এজেন্সি জানিয়েছে, হাজার দ্বীপ নামে পরিচিত একটি এলাকায় বিমানের ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে। এরপরই ওই এলাকায় তল্লাশি জোরদার করা হয়েছে।

বিমানটি গত কয়েক বছরে দুটি বড় বিধ্বস্তের ঘটনায় জড়িত থাকা ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের নয়। এর মধ্যে একটি ২০১৮ সালের অক্টোবরে ইন্দোনেশিয়ার লায়ন এয়ারের ফ্লাইট সাগরে বিধ্বস্ত হয়ে ১৮৯ জন নিহত হয়।


ঢাকা, রবিবার, জানুয়ারী ১০, ২০২১ (বিডিলাইভ২৪) // এস বি এই লেখাটি ৩৪৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন