সর্বশেষ
মঙ্গলবার ৬ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ২০ নভেম্বর ২০১৮

মেসিদের ক্যাম্পেইনে বাংলাদেশের শিশু!

বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১১, ২০১৫

1826440180_1423653262.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
ফুটবল ক্লাব বার্সেলোনা ফাইন্ডেশন, ইউনিসেফ ও কাতারভিত্তিক সংস্থা রিচ আউট টু এশিয়া (রোটা) মিলে একটি ক্যাম্পেইন চালু করেছিল জানুয়ারি মাসের ৯ তারিখে। 'ওয়ান ইন ইলেভেন' নামের সেই ক্যাম্পেইনটির পেছনের গল্প খুব সুখকর কিছু নয়।

জরিপ থেকে দেখা গেছে, সারা বিশ্বের প্রতি ১১ জন শিশুর একজন স্কুলে যাওয়ার আনন্দ থেকে বঞ্চিত। অর্থাৎ সারা বিশ্বের মোট জনসংখ্যার মধ্যে পাঁচ কোটি ৮০ লাখ শিশু স্কুলে যাওয়া এবং বিদ্যার্জনের সুযোগ থেকে বঞ্চিত। যাদের বেশির ভাগই উন্নয়নশীল ও অনুন্নত দেশগুলোর বাসিন্দা। যুদ্ধবিধ্বস্ত ও রাজনৈতিকভাবে অস্থিতিশীল এলাকাগুলোর অনেক শিশুর শামিল এই দলে।

‘ওয়ান ইন ইলেভেন’ অভিযানের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে তহবিল সংগ্রহ করে তা সুবিধাবঞ্চিত ওই সব শিশুর কল্যাণে ব্যয় করা। কেবল শিশুদের স্কুলে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারটিই নয়, তারা যেন নিয়মিত স্কুল-উপস্থিতি নিশ্চিত করা, স্বাস্থ্যসম্মত জীবন-যাপনে উৎসাহী করাও এর অন্য উদ্দেশ্য। প্রাথমিক পর্যায়ে এই কার্যক্রমের লক্ষ্যস্থল ধরা হয়েছে ইন্দোনেশিয়া, নেপাল ও বাংলাদেশকে। ইন্দোনেশিয়া ও নেপালে বিশেষভাবে কাজ করা হবে প্রতিবন্ধী শিশুদের স্কুলে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে। বাংলাদেশে ‘ওয়ান ইন ইলেভেন’ কার্যক্রমের লক্ষ্য হবে স্কুল থেকে ঝরে পড়া শিশুরা।

এই কার্যক্রমের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করছেন লিওনেল মেসি। সঙ্গে আছেন টেনিস তারকা সেরেনা উইলিয়ামস। এরা দুজনই এই কার্যক্রমের ওপর তৈরি একটি প্রচারণামূলক ভিডিওতে অংশ নিয়েছেন। গত ১১ জানুয়ারি ন্যু ক্যাম্পে বার্সেলোনা এবং অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের ম্যাচে মধ্যবিরতিতে বড়পর্দায় প্রিমিয়ার হয় ভিডিওটির। ইউনিসেফের ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল ‘ওয়ান ইন ইলেভেন’ কার্যক্রমের একটি নিলাম অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

ব্রিটেনের স্থানীয় সময় রাত আটটায় লন্ডনের একটি গ্যালারিতে অনুষ্ঠেয় নিলাম থেকে প্রাপ্ত অর্থ ব্যয় করা হবে ইন্দোনেশিয়া, নেপাল ও বাংলাদেশের সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষার পেছনে। সেই নিলামে থাকছে বিভিন্ন শিল্পীদের আঁকা ১৭টি চিত্রকর্ম। তার মধ্যে তিনটি চিত্রকর্মের বিষয় হিসেবে থাকছে সবার প্রিয় বার্সেলোনা ক্লাব। মজার ব্যপার হলো বার্সেলোনা নিয়ে আঁকা তিনটি চিত্রকর্মের মধ্যে দুটিই আঁকা হয়েছে মহাতারকা মেসিকে নিয়ে।

মেসিকে নিয়ে ছবি দুটি এঁকেছেন তাকাশি মুরাকামি এবং দেমিয়েন হার্স্ত। দেমিয়েন হার্স্তকে মনে করা হয় এই সময়ের অন্যতম শ্রেষ্ঠ চিত্রশিল্পী। একটি ছবিতে দেখা যাবে জেরার্ড পিকের মুখচ্ছবি। সেটির শিল্পী ফ্রান্সেস্কো ভেজ্জোলি।
এই কার্যক্রম সম্পর্কে মেসি বলেন, ‘আমি মনে করি প্রতিটি শিশুর স্কুলে যাওয়ার এবং নিজের স্বপ্ন পূরণের সুযোগ লাভের অধিকার রয়েছে। এ জন্য শিক্ষা অপরিহার্য, কিন্তু বিশ্বব্যাপী অনেক শিশু স্কুলে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছে না এবং তারা সেই সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তাই আমি “ওয়ান ইন ইলেভেন” প্রকল্পটিকে সমর্থন দিচ্ছি।’

চিত্রকর্ম ছাড়াও নিলামে উঠবে বিভিন্ন মূল্যবান আয়না, তৈজস ও আসবাব। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন অগণিত ফটোগ্রাফারের ছবিও থাকবে নিলামের তালিকায়। তাই কালকের নিলামটির সাফল্যের জন্যে মুখিয়ে আছেন ‘ওয়ান ইন ইলেভেন’-সংশ্লিষ্টরা। যত বেশি অর্থ সেই নিলাম থেকে আসবে, ততই বেশি উপকৃত হবে নেপাল, বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার সুশিক্ষাবঞ্চিত শিশুরা। তথ্যসূত্র: ইউনিসেফ, এফসি বার্সেলোনা ফাউন্ডেশন


ঢাকা, বুধবার, ফেব্রুয়ারী ১১, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ১৬০১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন