সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২৯শে কার্তিক ১৪২৫ | ১৩ নভেম্বর ২০১৮

রাশিভিত্তিক প্রেম ও দাম্পত্য সম্পর্ক

শনিবার, ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০১৫

159017360_1423909356.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
মেষ: (২১ মার্চ – ২০ এপ্রিল)
মেষ রাশির জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ও দাম্পত্য জীবন সুখের হয় মিথুন, সিংহ, ধনু এবং কুম্ভ রাশির। প্রেমের জন্য মিথুন ও কুম্ভ মেষের জন্য এক কথায় রাজযোটক। তবে মেষ রাশির সঙ্গে সিংহ রাশির  দীর্ঘস্থায়ী সম্পর্ক গড়ে তোলাটা জীবনে আনে শুভ পরিবর্তন। তবে ধনু ও মেষের যোগাযোগ এবং স্থায়িত্ব অন্য যে রাশির থেকে বেশি। তবে তুলা ও মেষের প্রেম হয়ে উঠতে পারে রোমিও–জুলিয়েট অথবা শাহজাহান–মমতাজের মতো। তবে মেষ জাতক জাতিকাদের কর্কট ও মকর থেকে হৃদয়জনিত বিষয়ে একটু দূরে থাকাটাই উত্তম হবে।

বৃষ: (২১ এপ্রিল – ২১ মে)
কন্যা জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে বৃষ রাশির জাতক-জাতিকাদের উত্তম সংযোগ হতে পারে। এই দুই রাশির মানুষরাই নির্বিবাদী চরিত্রের। আর এটাই এদের কাছাকাছি আসার মূল কারণ। উচ্চাকাঙ্ক্ষী চরিত্রের বৃষ বেছে নিন মকর রাশির সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে। সাফল্যের চড়াই-উৎরাই পথে তিনি আপনাকে সাহায্য করবেন। সত্যিকারের ভালোবাসার উদাহরণ হতে পারে মীনের সঙ্গে বৃষের প্রেম। হাতে হাত রেখে দীর্ঘ পথ একসাথে হেঁটে যেতে পারে এই দুই রাশির জাতক-জাতিকা। বৃষ ও বৃশ্চিকের রাশিগত চরিত্র ভিন্ন। তাই সম্পর্কে মাঝে মাঝে সমস্যা আসতে পারে। সিংহ রাশির সঙ্গে প্রেমে ঝামেলা বেশি হবে। তুলা রাশি বৃষের ক্ষেত্রে প্রেমযোগ মধ্যম।

মিথুন: (২২মে – ২১ জুন)
ধনু, কুম্ভ, সিংহ রাশির সঙ্গে খুব সহজেই প্রেম হতে পারে মিথুনের। তবে গভীর ও স্থায়ী প্রেমের জন্য মিথুনের জাতক-জাতিকাদের আদর্শ মেষ রাশি। সিংহ রাশি আপনাকে উপহার দিতে পারে একটি হাসিখুশি জীবন। বৃশ্চিকের সঙ্গেও মিলেমিশে জীবন কাটতেই পারে মিথুনের। তবে প্রেমের জন্য কর্কট, মকর, কন্যা ও তুলা রাশির মানুষের থেকে মিথুনের দূরে থাকাই শ্রেয়।

কর্কট: (২২ জুন – ২২ জুলাই)
সংবেদনশীল চরিত্রের কর্কটের সঙ্গে মীন এও বৃশ্চিক প্রেমযোগ অতি উত্তম। বৃষের সঙ্গেও কর্কটের বেশ ভালো মিল হতে দেখা যায়। এর কারণও সংবেদনশীলতা। কন্যা রাশির জাতক –জাতিকারাও কর্কটের জন্য শুভ। কর্কট ও কন্যার দাম্পত্য জীবনে কখনই একে অপরকে বুঝতে পারা নিয়ে সমস্যা হয় না। মেষ, তুলা কর্কটের জন্য শুভ নয়।

সিংহ: (২৩ জুলাই  - ২৩ আগস্ট)
সিংহ রাশির চরিত্র অনেকটা ইতিহাসের পাতার আলেকজান্ডারের মতো। এই রাশির জাতক-জাতিকাদের কর্তৃত্ব মেনে নিলে এরা যেকোনো রাশির সেরা বন্ধু হয়ে উঠতে পারে। তবে মেষ ও ধনু সঙ্গীর সঙ্গে সিংহ রাশির জাতক-জাতিকারা জীবনে অনুপ্রেরণা পায়। তুলা ও মিথুন রাশির জাতক-জাতিকারা সিংহের আধিপত্য মেনে নেওয়ার ফলে এদের সঙ্গেও প্রেমের সম্পর্ক মধুর হয়। বৃষ রাশির সঙ্গে সিংহের সম্পর্ক দরজা জানলা বন্ধ ঘরের মতো। সম্পর্ক থেকে দুজনেই বেরিয়ে যেতে চায়। বৃশ্চিক ও কুম্ভের সঙ্গেও প্রেম অথবা দাম্পত্য সুখের হয় না।

কন্যা: (২৪ আগস্ট – ২৩ সেপ্টেম্বর)
কন্যার জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে বৃষ ও মকর প্রেম শুভ এবং সুখী দাম্পত্যের দিকে নিয়ে যায়। মকরের সঙ্গে কন্যার সম্পর্ক থাকে শান্তিপূর্ণ ও স্বাভাবিক।  প্রেম বা দাম্পত্যে একটু উচ্ছ্বলতা চাইলে কর্কট ও বৃশ্চিক হয়ে উঠতে পারে কন্যার আদর্শ সঙ্গী। মিথুন ও ধনুর সঙ্গে দাম্পত্য কন্যা রাশির জন্য শুভ নয়। কন্যার বিপরীত রাশি মীন। তাই মীনের সঙ্গে কন্যার সম্পর্ক হয় কালবৈশাখী ঝড়ের পর অগোছালো নগরের মতো।

তুলা: (২৪ সেপ্টেম্বর – ২৩ অক্টোবর)
মিথুন ও তুলার প্রেম হেমন্তের ফুরফুরে বাতাসের মতো। এই প্রেম সাবলীল, ছন্দময় ও গতিশীল। কুম্ভের সঙ্গে তুলার সম্পর্কেও এই স্বাচ্ছন্দ্য বজায় থাকে। সঙ্গে থাকে নতুন অভিজ্ঞতা যাচাই করে দেখার সাহস। সিংহ রাশির মানুষের সঙ্গেও তুলার সম্পর্ক বেশ মিষ্টি-মধুর হয়ে ওঠে। ধনুর সঙ্গে তুলার সম্পর্ক মন্দ না হলেও থাকে উত্থান পতন। মকর, কর্কট ও মেষের সঙ্গে সংসার করতে গিয়ে জীবনে সমস্যা আসতে পারে তুলা রাশির জাতক -জাতিকাদের।

বৃশ্চিক: (২৪ অক্টোবর – ২২ নভেম্বর)
কর্কট ও মীন রাশি বৃষ রাশির প্রেম-দাম্পত্যের অতি ভালো সঙ্গী হতে পারে। বৃশ্চিকের চরিত্রের সঙ্গে মীন স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে। বৃশ্চিক রাশির সঙ্গে তুলার সুখী দাম্পত্য জীবনের সম্ভাবনা প্রবল। কন্যা ও মকর রাশির সঙ্গেও সম্পর্কে উন্নতি হয় বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকাদের। সিংহ, বৃষ ও কুম্ভের সঙ্গে সম্পর্কে না যাওয়াই ভালো।

ধনু: (২৩ নভেম্বর – ২১ ডিসেম্বর)
মেষ ও সিংহের মতো রাশিগুলি শক্তিশালী। এ ধরনের চরিত্রের সঙ্গী পছন্দ করেন ধনু রাশির জাতক-জাতিকারা। সিংহের সঙ্গে সম্পর্কে নিজের চারিত্রিক গঠন শক্তিশালী করে ধনু। মেষ রাশি তার জীবনে নিয়ে আসে উন্নতি। তুলার সম্পর্ক শুভ। মেষ ও কর্কটের সঙ্গে সম্পর্কে ঝামেলা হতে পারে। তবে কুম্ভের সঙ্গে মেষ রাশির সম্পর্ক সাধারণ প্রেমের সম্পর্কেই সীমিত থাকে না।

মকর: (২২ ডিসেম্বর – ২০ জানুয়ারি)
মকরের সফল দাম্পত্য জীবনের চাবিকাঠি হলো কন্যা রাশি। বৃষের সঙ্গেও মকরের দৃঢ় সম্পর্ক হয়ে থাকে। এছাড়াও বৃশ্চিক ও মীনের সঙ্গেও সফল দাম্পত্য জীবন গড়ে তুলতে পারেন মকর। তুলা ও মেষ রাশির সঙ্গে মকর কিছুটা অস্বস্তির মধ্যে থাকবেন। কর্কটের সঙ্গে সম্পর্কে চারিত্রিক ধন্ধ আসতে পারে। এ সমস্যা সম্পর্ক ভাঙার দিকে নিয়ে যেতে পারে।

কুম্ভ: (২১ জানুয়ারি – ১৮ ফেব্রুয়ারি)
মিথুন রাশির সঙ্গে কুম্ভ রাশির প্রেমযোগ অতি শুভ। এই দুই রাশির মধ্যে পারস্পারিক সম্পর্ক ভালো থাকবে। তুলার সঙ্গে ভালো হবে দাম্পত্য জীবন। স্বাভাবিক সম্পর্কে বজায় রাখতে ধনু হতে পারে কুম্ভের আদর্শ সঙ্গী। বৃষ ও বৃশ্চিকের সঙ্গে মোটেও সহজ হবে না কুম্ভের প্রেম বা দাম্পত্য জীবন।
 
মীন: (১৯ ফেব্রুয়ারি – ২০ মার্চ)
সুখী দাম্পত্য জীবন চাইলে বৃশ্চিক ও কর্কট উভয় রাশি হয়ে উঠতে পারে মীন জাতক জাতিকাদের আদর্শ সঙ্গী বা সঙ্গিনী। জ্যোতিষ মতে, মকর ও মীনের প্রেম হয়ে উঠতে পারে সফল প্রেমের উদাহরণ স্বরূপ। বৃষ রাশির জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে খুব দ্রুত সম্পর্ক গড়ে উঠতে পারে মীনের। তবে মিথুন ও ধনুর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে না জড়ানোই ভালো।

জ্যোতিষ কুমারী রুবাই

ঢাকা, শনিবার, ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // আর কে এই লেখাটি ৫০০২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন