সর্বশেষ
শুক্রবার ৬ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

৭টি বিষয় নিশ্চিত করবে সম্পর্কটির ভবিষ্যত সুখের

মঙ্গলবার, জুন ১৬, ২০১৫

1069931984_1434449134.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
মানুষ ভবিষ্যতে সুখী হবেন কি হবেন না তা কি আগে থেকে বলা যায়? বিশেষ করে সম্পর্কের ক্ষেত্রে। অনেকেই বলবেন জানা যায় না, কারণ মানুষের মধ্যে পরিবর্তন চলে আসে। কথাটি সত্যি, মানুষের মধ্যে পরিবর্তন আসে অবশ্যই। কিন্তু মানুষের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের পরিবর্তন কিন্তু খুব সহজে আসে না। মানুষ নিজের কিছু ব্যাপার একেবারেই পরিবর্তন করতে পারেন না। সে সকল বিষয় দেখেও কিন্তু নির্ধারণ করা যায় সম্পর্কের ভবিষ্যত আসলে ভালো কি মন্দ। এরকমই কিছু বিষয় নিজের সঙ্গীর মধ্যে দেখলে বুঝতে পারবেন আপনাদের সম্পর্কের ভবিষ্যত সত্যিকার অর্থেই অনেক বেশি সুখের।

১) আপনারা একে অপরকে পরিবর্তন করতে চান না, দুজনেই বর্তমান দুজনকে নিয়ে অনেক বেশি খুশি যদি হয়ে থাকেন তাহলে আপনাদের সম্পর্কের ভবিষ্যৎ ভালো। কারণ আপনারা দুজনেই মেনে নিতে অভ্যস্ত, যখন পরিবর্তন আসবে তখন দুজনেই তা মেনে নিয়ে সুখে থাকতে পারবেন।

২) দুজন দুজনের মানসিক চাপ কমানোর বিষয়ে অনেক বেশি সচেতন। একজন আরেকজনকে চাপে ফেলেন না বরং সঙ্গী চাপে থাকলে তা দূর করার সর্বাত্মক চেষ্টা করেন। এই ব্যাপারটি প্রমাণ করে আপনারা একে অপরের প্রতি অনেক বেশি কেয়ারিং যা সম্পর্ককে অনেক গভীর করে।

৩) আপনারা অন্যের কথায় নাচেন না বরং যদি মনে খটকা থাকে তাহলে সঙ্গীকে জিজ্ঞেস করেই খটকা কাটিয়ে ফেলেন। আপনারা দুজনেই বিশ্বস্ত মানুষ এবং অনেক বেশি বিশ্বাসী থাকেন একে অপরের কাছে। সম্পর্ক অবশ্যই সুখের হবে।

৪) বিষয় যতো ঠুনকো হোক বা ব্যক্তিগত হোক না কেন দুজন দুজনকে না জানিয়ে কোনো কাজে হাত দিতে পারেন না। এতে বুঝতে পারবেন আপনারা একে অপরের প্রতি অনেক নির্ভরশীল (ভালো অর্থে), যা সম্পর্ক ধরে রাখার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

৫) ভুল থাকলেও তা থেকে আপনারা ভালো দিকটা খুঁজে বের করার চেষ্টা করেন সবসময়। দুজনেই যদি এই ধরনের মানসিকতার হয়ে থাকেন তাহলে সম্পর্ক ভাঙনের পেছনে যে বিষয়টি কাজ করে অর্থাৎ একে অপরের ভুল ধরার বিষয়টি একেবারেই আসবে না। সুতরাং আপনারা সুখেই থাকবেন।

৬) আপনাদের খুশি করতে বড় কিছুর প্রয়োজন হয় না, আপনারা ছোটো ছোটো রোম্যান্টিক কাজ, সারপ্রাইজেই অনেক বেশি খুশি হয়ে যান। এতে বোঝা যায় আপনারা দুজনই অল্পতে সন্তুষ্ট থাকেন। এতে ভবিষ্যতে সুখী হওয়ার সম্ভাবনা আরো বেড়ে যায়।

৭) দুজনেই যখন দুজনের দিকে তাকান তখন ভবিষ্যত নিয়ে কোনো শঙ্কা কাজ করে না, বরং একটি সুখী ভবিষ্যত দেখতে পান, যদি এমন হয় তাহলে বুঝতে পারবেন আপনারা একে অপরকে নিজেদের জীবনে পেয়ে অনেক বেশি সুখী। এই তৃপ্তিটুকুই একটি দারুণ ভবিষ্যত উপহার দেবে আপনাদের।

ঢাকা, মঙ্গলবার, জুন ১৬, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ১৫৯৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন