সর্বশেষ
রবিবার ৪ঠা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৮ নভেম্বর ২০১৮

নির্ভাবনায় বাজার করতে পারেন যেসব সুপারশপে

বুধবার, আগস্ট ১২, ২০১৫

707312201_1439401765.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
বর্তমানের আধুনিক যুগে প্রত্যেকেই নিজ নিজ কাজে ভীষণ ব্যস্ত। একটু সময় বের করে নিয়ে সংসারের জন্য জিনিস কিনবেন তার ফুরসৎ নেই কারো। বরং বাজার করার বিষয়টাকে ঝামেলার বলেই মনে করেন সকলে। একটু দেখে বুঝে শুনে দরদাম করে বাজার করতে বেশ সময়ের প্রয়োজন বলেই বাজার করা বেশ ঝামেলার মনে হয়। আর তাই অনেকে সাধারণ বাজারের চাইতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে বড় সুপারশপগুলোতে বাজার করতে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে ব্যাঙের ছাতার মতো গড়ে উঠা সুপারশপগুলোর কোনটা বিশ্বস্ত হবে এবং কারা ঠকিয়ে দেবে না তা নিয়ে চিন্তার অন্ত নেই। বিশেষ করে উত্তরার মানুষদের জন্য। কারণ ঢাকার মাঝামাঝি অন্যান্য স্থানে বেশ ভালো এবং প্রচুর বড় বড় সুপারশপ থাকলেও উত্তরার মানুষেরা বলতে গেলে সুবিধাবঞ্চিতই। তবে আজকাল উত্তরাতেও বেশ ভালো কিছু সুপারশপের দেখা মিলছে এবং মানুষজন বেশ আশ্বস্ত হয়েই শপিং করছেন এইসকল স্থান থেকে। যদি আপনি উত্তরার বাসিন্দা হয়ে থাকেন এবং বাজার করতে একটু ইতস্তত বোধ করেন এইসব সুপারশপে তাহলে চিনে নিন উত্তরার এমনই কিছু নির্ভরযোগ্য সুপারশপ।

১) আগোরা
আগোরা বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম সুপারশপগুলোর মধ্যে একটি। ঢাকায় ১৩ টি আউটলেট রয়েছে এই সুপারশপের। এবং উত্তরায় রয়েছে দুটি আউটলেট যার মধ্যে উত্তরার ১৪ নং সেক্টরের গাউসুল আজম সরণীতে ৩ তলা বিশিষ্ট সুপারশপটি তৈরি করা হয়। দৈনন্দিন জীবনের সকল কিছুই এই সুপারশপে। কাঁচা বাজার, কসমেটিক্স, গ্রোসারি, বেবি ফুড, ক্রোকারিজ, ড্রাই ফুড, শোপিস-ফ্যান্সি আইটেম, স্পাইসেস, খেলনা, ফাস্টফুড, ইলেক্ট্রনিক্স, সুইটমিট, গার্মেন্টস, ড্রিংকস, হারবাল পণ্য, ফ্রোজেন ফুডস, মাছ-মাংস, শাক-সবজি, ফ্রুটস এবং দেশে বিদেশের পণ্য পাওয়া যায়। পণ্যের মান নিয়ে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায় নি, সুতরাং শপিং করতে পারেন নির্দ্বিধায়।

২) স্বপ্ন
খুবই নতুন হলেও স্বপ্নের জনপ্রিয়তা এখন পুরো ঢাকা জুড়েই। উত্তরার সেক্টর ৩ এ রাজলক্ষ্মীর ঠিক পেছনেই প্রায় ৩ তলা জুড়ে তৈরি করা হয়েছে এই সুপারমার্কেটটি। এখানে দৈনন্দিন জীবনযাপনের গ্রোসারি জিনিসপত্রের পাশাপাশি হোম ডেকোরেশনের জিনিস, কসমেটিকস, জামা জুতো, থেকে শুরু করে সবকিছুই রয়েছে। এমনকি নিজস্ব অ্যাকুরিয়ামে জীবন্ত মাছ পাওয়া যায় এই সুপারশপটিতে। অন্য কোনো দোকান বা মার্কেটেও ঘুরতে হবে না একেবারেই। যদি শপিং করতে গিয়ে ক্ষিধেও পায় তাহলেও দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই। এই শপের ৪র্থ তলায় রয়েছে ফুড কোর্ট। অনায়েসে ঘুরে ফিরে নিজের পছন্দ্র পণ্য নির্বাচন করতে পারেন।

৩) মীনা বাজার
দেশের অন্যতম রিটেইল চেইন সুপারশপ মীনা বাজার ২০০২ সালে যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে প্রায় ২০০ টির বেশী আউটলেট রয়েছে পুরো দেশ জুড়ে। সকল ধরণের দৈনন্দিন জিনিসপত্র সবই এখানে পাওয়া যায়। উত্তরায় গরিব-এ-নেওয়াজ এভিনিউ সেক্টর- ১১ ও গাউসুল আজম এভিনিউ রোড, সেক্টর -১৪ এই দুইটি শাখা রয়েছে। সবচাইতে সুবিধা হচ্ছে প্রতিটি আউটলেটেই হোম ডেলিভারির সুবিধা রয়েছে।

৪) নন্দন মেগা শপ
উত্তরা আজমপুর বাস স্ট্যান্ড চৌরাস্তা থেকে পূর্ব দিকে ৫০ গজ ভেতরে নওয়াব হাবিবউল্লাহ মডেল স্কুল এন্ড কলেজের উল্টো দিকে নন্দন মেগা শপ অবস্থিত। এই সুপারশপে কাঁচা বাজার, কসমেটিক্স, গ্রোসারি, বেবি ফুড, ক্রোকারিজ, ড্রাই ফুড, শোপিস-ফ্যান্সি আইটেম, স্পাইসেস, খেলনা, ফাস্টফুড, ইলেক্ট্রনিক্স, সুইটমিট, গার্মেন্টস, ড্রিংকস, হারবাল পণ্য, ফ্রোজেন ফুডস, মাছ-মাংস, শাক-সবজি, ফ্রুটসসহ দৈনন্দিন জীবনের সব কিছুই পাওয়া যায়। সপ্তাহের ৭ দিন সকাল ৮.০০ টা থেকে রাত ৮.০০ টা পর্যন্ত খোলা থাকে এই সুপারশপটি। মাছ-মাংস আপনার পছন্দমতো কেটে দেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে বাড়তি কোনো মূল্য পরিশোধ ছাড়াই।

৫) শপ’এন সেভ
উত্তরার সেক্টর ৪ এর এই সুপারশপটিতে দেশ বিদেশী সকল ধরণের পণ্য পাওয়া যায়। সাধারণ দোকান এবং আগোরা ও সপ্নেও পাওয়া যায় না এমন বেশ কিছু পণ্যের দেখা পাওয়া যায় এই সুপারশপে। তাজা কাঁচা বাজার এবং স্বাস্থ্যকর খাবার পাওয়া যায় বলে দিনে দিনে এই সুপারশপটির জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে।

সতর্কতা:

১) একসাথে অনেক জিনিস থাকে সুপারশপগুলোতে এবং প্রতিদিনই নতুন করে তোলা হয় জিনিসপত্র তাই প্রত্যেক ধরণের আইটেম একেবারে শেষ পর্যন্ত মেয়াদউত্তীর্ণ কিনা তা দেখা আসলেই অসম্ভব। তাই একটু সতর্ক হয়ে বাজার করুন নিজেই। এক/দুই প্যাকেট জিনিসের মেয়াদউত্তীর্ণের তারিখ দেখে নেয়া তেমন কঠিন কিছু নয়।

২) বিলের ব্যাপারে সর্তক থাকুন। সম্পূর্ণ মেশিনে হিসেব করা হয় বলেই যে একেবারেও নিখুঁত হিসেব আসবে তা মনে করার কারণ নেই। কারণ একটু এদিক সেদিক হলেই ৩ এর স্থানে ৩৩ উঠে যাওয়া অসম্ভব নয়। তাই নিজেই মিলিয়ে দেখুন নিজের কেন আইটেম সংখ্যা এবং দাম। লাভ হবে আপনারই।

৩) যতো নির্ভরযোগ্যই হোক না কেন চোখ বন্ধ করে কিনে নেবেন না যে কোনো কিছু। নিজের ও পরিবারের স্বাস্থ্য রক্ষার দায়িত্ব কিন্তু সুপারশপগুলোর নয়, আপনার।

ঢাকা, বুধবার, আগস্ট ১২, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // এম এস এই লেখাটি ১০৬৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন