সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ৫ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ফ্যাশানে নতুন মাত্রা ঘাগরা

বুধবার, আগস্ট ১৯, ২০১৫

1369053162_1439969198.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
মানানসই ‘টপস’ আর দৈহিক গঠন বুঝে স্কার্ট পরলে দেখতে অবশ্যই সুন্দর লাগবে। আর গরমে আরামদায়ক পোশাক হিসেবে নতুন প্রজন্মের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে স্কার্ট।

পাশ্চাত্য ফ্যাশন হলেও আমাদের দেশীয় পোশাক হিসেবেও স্থান করে নিয়েছে। লম্বা এবং মাঝারি দৈর্ঘ্যের স্কার্ট বর্তমান ফ্যাশনে বেশ জনপ্রিয়। ঘরের পোশাক হিসেবে বেশ আরামদায়ক হলেও বর্তমানে ইউনিভার্সিটি, বন্ধুদের আড্ডা, অনুষ্ঠান ইত্যাদিতেও স্কার্ট বেশ মাননাসই পোশাক হিসেবে স্থান করে নিয়েছে।

ঋতু বদলের সঙ্গে পোশাক বাছাইয়েও আসে পরিবর্তন। তীব্র গরমে যাদের অনেকটা সময় বাইরে কাটাতে হয় তাদের জন্য প্রয়োজন আরামদায়ক পোশাক। এই বিষয় মাথায় রেখেই তরুণীরা বর্তমানে স্কার্ট-টপস বা শার্ট বেছে নিচ্ছেন।

হাল ফ্যাশনে স্কার্টের জনপ্রিয়তা এবং স্কার্ট পরার ক্ষেত্রে লক্ষণীয় বিষয়গুলো হলো। সামনে একটু উঁচু আর পেছনে ঝোলানো, স্কার্টের কলিগুলো কিছুটা উঁচুনিচু ইত্যাদি বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। আমাদের দেশীয় সংস্কৃতির সঙ্গে পা পর্যন্ত লম্বা স্কার্টই বেশি মানানসই।

আমাদের দেশে পাশ্চাত্য ফ্যাশনের এই পোশাক ঘরের বাইরে ততোটা জনপ্রিয় নয়। তবে ঘরের পোশাক হিসেবে এটি দীর্ঘদিন ধরেই বেশ প্রচলিত। কারণ একটু লম্বা ও ঘের বেশি হওয়ায় এটি গরমের মৌসুমে বেশ আরামদায়ক।

‘লং’ বা ‘সেমি লং’ স্কার্টের সঙ্গে ‘শর্ট টপস’ বা মাঝারি আকারের ফতুয়া বেশ মানানসই। চাইলে মানানসই টি-শার্ট বা শার্টও পরা যেতে পারে স্কার্টের সঙ্গে। আমাদের পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে ‘ফুল লেন্থ’ স্কার্ট বেছে নেয়া যেতে পারে। কুচি দেয়া বা কলি স্টাইলের স্কার্টগুলো বেশ ভালো লাগে দেখতে। লেহেঙ্গার মতো লম্বা ও ঘের দেয়া স্কার্টগুলোর সঙ্গে মানানসই টপস পরলে দেখতেও বেশ ফ্যাশনেবল লাগে।

স্কার্টের সঙ্গে ছোট ফতুয়া ধরনের টপস দেখতে বেশ ভালো লাগে। তবে একটু মোটা যারা তাদের জন্য কিছুটা লম্বা বা হিপের নিচ পর্যন্ত যায় এমন টপস বেছে নেয়া উচিত। এতে দেখতে ভালো লাগবে।

গরমে স্কার্টের কাপড় হিসেবে লিলেন ও সুতি কাপড়ই বেশি আরামদায়ক। তবে ভয়েল বা আদ্দি-কাপড়ের স্কার্ট বেশ ভালো।

টপসের ডিজাইন বেছে নেয়া যেতে পারে নিজের রুচির সঙ্গে মিলিয়ে। পাঞ্জাবি-গলা, গোল-গলা, বোট নেক, ‘ইউ’ বা ‘ভি’ গলা বেশ মানায়। স্কার্টের সঙ্গে ছোট একটি স্কার্ফ বা ওড়না গলায় ঝুলিয়ে নেয়া যেতে পারে। তাছাড়া গরমের জন্য ম্যাগি-হাতা, ছোট বা ঘটি-হাতা এবং স্লিভলেস টপস বেশ ফ্যাশনেবল।

এখনকার ফ্যাশনে পোশাকের ডিজাইনে বিভিন্ন কাট নিয়ে নতুনত্বের প্রচলন রয়েছে। স্কার্টের ক্ষেত্রেও এটি বেশ চোখে পড়ছে। সামনে একটু উঁচু আর পেছনে ঝোলানো, স্কার্টের কলিগুলো কিছুটা উঁচুনিচু ইত্যাদি বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। অসম-কলির স্কার্ট পরলে দেখতে বেশ ভালো লাগে।

স্কার্টের সঙ্গে টপস বাছাইয়ের ক্ষেত্রে দুটির রং এবং প্রিন্ট মানানসই কিনা সেই বিষয়ে বিশেষ লক্ষ রাখতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে স্কার্ট এবং টপস দুটোই যেন একই ধরনের প্রিন্টের না হয়। স্কার্ট যদি প্রিন্টের হয় তাহলে এক রঙা বা হালকা সুতার কাজ, ব্লক প্রিন্টের টপস বেছে নিতে হবে। আবার এক রঙা বা নিচে পাড় বসানো স্কার্টের সঙ্গে ভারি কাজ বা প্রিন্টের টপস বেশ ভালো লাগে।

যেখানে পাবেন

পছন্দমতো স্কার্ট পেতে বিভিন্ন ব্র্যান্ড এবং দেশীয় ফ্যাশন ঘরগুলো ঘুরে দেখা যেতে পারে। গুলশানের ক্যাটস আইয়ের আউটলেটে মাঝারি, ‘লং’, ‘সেমি লং’ ইত্যাদি ধরনের স্কার্ট পাওয়া যাবে। জর্জেট এবং গেঞ্জি কাপড় দিয়ে তৈরি করা হয়েছে স্কার্টগুলো।

ফ্যাশন হাউজ ‘যাত্রা’য় পাওয়া যাবে স্কার্ট। বিভিন্ন বিষয়ের উপর ভিত্তি করে পুরানো কাপড় ব্যবহার করে তৈরি হয় ‘যাত্রা’র স্কার্টগুলো। কাপড়ের উপর কাপড়ের ডিজাইন, আবার সঙ্গে পুতি বা ফিতা দেয়া স্কার্টও পাওয়া যাচ্ছে।

‘আড়ং’য়ে পাওয়া যাবে ট্রাইবাল মোটিফ বা বিভিন্ন প্রিন্টের স্কার্ট। বাহারি রং, লেস এবং পাড় বসানো নানান ধরনের স্কার্টের ভিন্নতা পাওয়া যাবে আড়ংয়ের সবগুলো আউটলেটের ‘তাগা’য়।

ফ্যাশন ঘর ‘সাদাকালো’তেও রয়েছে সাদা ও কালো কম্বিনেশনের স্কার্ট। ‘মায়াসির’রে রয়েছে বিভিন্ন রং ও নকশার লং স্কার্ট। ফ্যাশন হাউজ থেকে কিনতে স্কার্টের দাম পড়বে এক হাজার থেকে সাড়ে তিন হাজার টাকা।

চাইলে গজ কাপড় কিনে নিজের মনের মতো ডিজাইনে বানিয়েও নেয়া যেতে পারে স্কার্ট।

ঢাকা, বুধবার, আগস্ট ১৯, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ২৪৫৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন