সর্বশেষ
শনিবার ৩রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৭ নভেম্বর ২০১৮

সকালে স্কুলের নেতিবাচক দিক

সকালে স্কুল শিশুদের শারীরিক ও মানসিক বৃদ্ধিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে

রবিবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৫

1860571916_1442749146.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
সম্প্রতি ব্রিটিশ গবেষকরা দাবি করেন, সকালে স্কুল শিশুদের স্বাভাবিক বেড়ে উঠায় বিরূপ প্রভাব ফেলে। কেননা এতে শিশুরা পর্যাপ্ত ঘুমাতে পারে না যা তাদের শারীরিক ও মানসিক বৃদ্ধিতে প্রভাব ফেলে।

রোববার টাইমস অব ইন্ডয়ার এক খবরে বলা হয়, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক পল কেলি এ বিষয়ে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে আমেরিকান বিজ্ঞানীদের সাথে দীর্ঘদিন গবেষণা চালান। অধ্যাপক পল বলেন, ৮-১০ বছর বয়সীদের ক্লাস সাড়ে ৮টা বা তার পর, ১৬ বছর বয়সীদের ১০টায় ও ১৮ বছর বয়সীদের ১১টায় শুরু করা উচিত।

সারা বিশ্বের শিশুদের নিয়ে এ গবেষণা করা হয়েছে। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই শিশুদের সকালে স্কুলে যেতে হয় যা তাদের বিকাশে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। গতবছর অধ্যাপক পল কেলির একটি গবেষণা পত্র প্রকাশ পেয়েছে যাতে কেলি জানান ব্রিটিশ শিশুদের স্কুলের কারণে প্রতি সপ্তাহে ঘুমের ১০ ঘন্টার বেশি সময় নষ্ট হয়।

অনেক শিশুদের সূর্য উঠার আগেই বাসা থেকে বের হতে হয়। এতে তাদের আরো আগে ঘুম থেকে উঠতে হয়। তাই অনেক অভিভাবক স্কুল পিছাঁনোর জন্য আগ্রহী।

কেলি তার গবেষণায় বলেন, ঘুমের অভাব এবং অনিয়মিত ঘুম শিশুদের স্থূলতা বাড়ায় ও স্মৃতিশক্তি কমায়। এছাড়া দীর্ঘদিন এ অভ্যাস চলতে থাকলে হৃদরোগ, উচ্চ বিপি, স্ট্রোক এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ে বলেও তিনি জানান।

মার্কিন ন্যাশনাল স্লিপ ফাউন্ডেশনের দেয়া বয়সভিত্তিক ঘুমের তালিকা দেয়া হলো-

০-৩ মাস: দিনে ১৪-১৭ ঘন্টা

৪-১১ মাস: ১২-১৫ ঘন্টা

১-২ বছর: ১১-১৪ ঘন্টা

৩-৫ বছর: ১০-১৩ ঘন্টা

৬-১৩ বছর: ৯-১১ ঘন্টা

১৪-১৭ বছর: ৮-১০ ঘন্টা

১৮- ২৫বছর: ৭-৯ ঘন্টা

২৬-৬৪ বছর: ৭-৯ ঘন্টা

৬৫+      : ৭-৮ ঘন্টা

সূত্র: জি নিউজ




ঢাকা, রবিবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // টি এ এই লেখাটি ১১৯৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন