সর্বশেষ
বুধবার ৪ঠা আশ্বিন ১৪২৫ | ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ওলটপালট হয়ে গেল পুরো ভারতীয় ক্রিকেটই

মঙ্গলবার, নভেম্বর ১০, ২০১৫

293878088_1447092252.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
বিসিসিআইয়ের বহুল আলোচিত এজিএমের পর পুরো ভারতীয় ক্রিকেটেই পাল্টে গেল। অনেক ওলটপালটের সভা হয়ে থাকল এই এজিএম। সবচেয়ে বড় পরিবর্তন তো অবশ্যই শ্রীনিবাসনকে আইসিসির রাজ্যপাট থেকেই সরিয়ে দেওয়া। তবে এখানেই শেষ নয়। আরও বড় দুই পরিবর্তন এসেছে ক্ষমতা কাঠামোয়।

আইপিএলের পরিচালনা পর্ষদ থেকে রবি শাস্ত্রীকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। নির্বাচকের পদ থেকে সরে গেছেন রজার বিনি।

বোর্ডের এজিএম হওয়ার আগে থেকেই বাতাসে গুঞ্জন ছিল শ্রীনির সরে যাওয়া নিয়ে। গুঞ্জনটি সত্যি হতে খুব বেশি সময় লাগে নি। শ্রীনিকে সরিয়ে আগামী জুন পর্যন্ত আইসিসিকে নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্বটা পেয়েছেন শশাঙ্ক মনোহর। পদ হারানোর তালিকাটা অবশ্য শ্রীনিতেই শেষ হয়নি। ছেলে স্টুয়ার্ট বিনি জাতীয় দলের খেলছেন। স্বার্থের সংঘাত দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে নির্বাচকের পদ থেকে সরে যেতে হলো রজার বিনিকে। বিসিসিআইয়ের টেকনিক্যাল কমিটি থেকে বাদ পড়েছেন অনিল কুম্বলে। এখন থেকে বোর্ডের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক থাকবে একজন ধারাভাষ্যকার হিসেবেই। এই বাদ পড়ার তালিকায় আছেন শাস্ত্রীও। বর্তমানে ভারতীয় দলের টিম ডিরেক্টর পদে থাকা শাস্ত্রী আর আইপিএলের অভিভাবক পর্ষদে নেই।

ক্ষমতার পালাবদলে টেকনিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন সৌরভ গাঙ্গুলি। তবে এ জন্য ভাষ্যকার হিসেবে বোর্ডের সঙ্গে করা চুক্তি বাতিল হয়ে গেছে তাঁর। বোর্ডের মধ্যে বিদ্যমান বিভিন্ন স্বার্থের দ্বন্দ্বের বিষয়গুলো খতিয়ে দেখার জন্য নতুন এক পদ সৃষ্টি করা হয়েছে। এ পদে নিয়োগ পেয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এপি শাহ।

ম্যাচ পাতানোর কেলেঙ্কারিতে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছে আইপিএলের দুই দল রাজস্থান রয়াল এবং চেন্নাই সুপার কিংস। আগামী দুই বছরের জন্য আইপিএলে দেখা যাবে নতুন দুটো দল। এই দুই দলের ব্যাপারে কার্যক্রম শুরু হবে ১৫ নভেম্বর থেকে। তবে দল দুটির জন্য নিলাম ডাকা হবে ৮ ডিসেম্বর। দলগুলোর জন্য প্রাথমিক মূল্য হাঁকা হয়েছে ৪০ কোটি রুপি।

ঢাকা, মঙ্গলবার, নভেম্বর ১০, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // এম এস এই লেখাটি ৬৭৫০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন