সর্বশেষ
মঙ্গলবার ১০ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কুমিরের সঙ্গে সাঁতার কাটল বাবা-মেয়ে!

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৪, ২০১৬

1329789388_1470280702.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
সন্তানকে নিয়ে কুমিরের সঙ্গে সাঁতার কাটা? শুনতে অবিশ্বাস্য মনে হলেও এটাই সত্যি। এমন একটি ঘটনারই সাক্ষী হল কিউবা।

কিউবার বৃহত্তম সংরক্ষিত অঞ্চল হারদিনেস ডে লা রেইনাতে স্টিফেন ফ্রিঙ্ক নিজের মেয়েকে নিয়ে কুমিরের সঙ্গে সাতার কেটেছেন। স্টিফেন বন্য প্রাণী আলোকচিত্রী। তাই এ সময় তিনি ক্যামেরাবন্দীও করেন অবিশ্বাস্য কিছু দৃশ্য।

একটি ছবিতে দেখা গেছে, সাঁতার কাটার সময় ৮ ফুট লম্বা এবং ২০০ পাউন্ড ওজনের একটি কুমিরের খোলা চোয়াল থেকে মাত্র কয়েক ইঞ্চি দূরে অবস্থান করছেন ফ্রিঙ্কের ২৩ বছর বয়সী মেয়ে অ্যালেক্সা ফ্রিঙ্ক।

স্টিফেন জানান, অ্যালেক্সা তিন বছর বয়স থেকেই মা-বাবার সঙ্গে বিভিন্ন অনুসন্ধানীমূলক কাজে যুক্ত। এ সময়েই তার ডুবুরির কাজে হাতেখড়ি।

স্টিফেন বলেন, হারদিনেস ডে লা রেইনাতে কুমিরের আবাসস্থলের পরিবেশ দেখানোই তার আলোকচিত্রের লক্ষ্য ছিল। অপরিকল্পিত উন্নয়নের কারণে পরিবেশটা এখন হুমকির মুখে পড়েছে। তবে একটি কুমির যখন স্পষ্ট দাঁত বের করে তাদের নৌকার দিকে এগিয়ে যায়, তখন কুমিরটির শিকারের দক্ষতা হয়ে ওঠে স্টিফেনের আলোকচিত্রের বিষয়বস্তু।

তিনি আরো বলেন, 'কুমিরের দাঁতসহ ছবিগুলোর মধ্যে অনেকগুলোই মাত্র দুই ইঞ্চি দূরত্ব থেকে তোলা'।

স্টিফেন ও অ্যালেক্সা কুমিরটির নাম দিয়েছেন নিনো। কুমিরটি তাদের নৌকার কাছে চলে এলে তারা পানিতে নেমে পড়েন ছবি তোলার জন্য।

স্টিফেন বলেন, 'সেখানে অবশ্যই কুমিরের স্বভাবের বিষয়ে অনিশ্চয়তা ছিল'। তবে আমাদের ভয় কিছুটা কম ছিল। কারণ কুমিরটির গতি তুলনামূলকভাবে কম ছিল। 'কুমিরের চেয়ে হাঙরের সঙ্গে আমার অভিজ্ঞতা নিশ্চিতভাবেই অনেক বেশি'। কুমিরের এই ছবিগুলো তোলার সময় কিছুটা মহড়া, ভুল এবং শিক্ষার বিষয়টি জড়িয়ে আছে।

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৪, ২০১৬ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ১২১৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন