সর্বশেষ
বুধবার ১১ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

রিও অলিম্পিকের উদ্ভোধন কাল

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৪, ২০১৬

2018304383_1470329810.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
পৃথিবীর বুকে সবচেয়ে বড় আয়োজন। প্রতিবারই বিশ্বকে চমকে দেয় এর আয়োজকরা। আর এর সবচেয়ে আকর্ষনীয় অংশ হলো উদ্ভোধনী অনুষ্ঠান।

গত আসরে বিশ্বকে মুগ্ধ করেছিলো ইংল্যান্ড। বেইজিং অলিম্পিককে ছাড়িয়ে গিয়েছিলো লন্ডন অলিম্পিক।  তবে এবারের আয়োজন লন্ডনকে ছাড়াতে পারবেনা। তার প্রধান কারণ উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে বাজেট।

রিও অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান ফার্নান্দো মেইরেলেস জানিয়ে দিয়েছেন, রিও অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বাজেট হচ্ছে লন্ডন অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের চেয়ে ১২ গুণ আর বেইজিং অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের চেয়ে ২০ গুণ কম।

তবুও অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য সারা বিশ্বের চোখ পাখির মতই নিবদ্ধ থাকবে রিও ডি জেনিরোর ঐতিহাসিক মারাকানা স্টেডিয়ামের ওপর। ফুটবলের জন্য বিখ্যাত হলেও এখন এটা হয়ে গেছে অলিম্পিক স্টেডিয়াম। এখানেই জ্বলবে অলিম্পিকের মশাল। ফুটবল কিংবদন্তী পেলের হাতেই জ্বলে ওঠার কথা রিও গেমসের মশাল। এ মশাল হাতে নিবেন বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী ড. মোহাম্মাদ ইউনুসও।

স্থানীয় সময় ৫ আগস্ট হলেও বাংলাদেশের সময় অনুযায়ী এটি ৬ আগস্ট শনিবার ভোর ৫ টায় শুরু হবে।

এবারের অনুষ্ঠানে নতুন কী কী থাকছে- মূলতঃ প্রত্যেকটি গেমসেই ফুটিয়ে তোলা হয় স্বাগতিক দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য, সংস্কৃতি। সে আলোকে এবার রিও অলিম্পিক গেমসের উদ্বোধনী সাজানো হয়েছে লাতিনের ইতিহাস-ঐতিহ্য দিয়েই।

গ্লোবাল ওয়ার্মিং থেকে আমাজন অরণ্যের ভয়ঙ্কর সুন্দর আবহও ফুটে ওঠার কথা মারাকানার সবুজ ঘাসে। ব্রাজিলিয়ান সুপার মডেল জিসেল বুন্দচেনের ক্যাটওয়াক, সে দেশের সঙ্গীতের জনপ্রিয় নাম কায়তানো বেলোসো, গিলবার্তো গিলদের পারফরম্যান্সও দেখা যাবে। তেমনই অলিম্পিক উদ্বোধন প্রথমবার দেখা যাবে কোনও রূপান্তরকামী পারফরর্মার, ব্রাজিলের ফ্যাশন ব্যক্তিত্ব লি টি।

ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী সাম্বা নৃত্যতো থাকছেই। থাকছে অনেক চমক। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখতে হাজির থাকবেন প্রায় ৭৮ হাজার দর্শক। বিশ্বের তিন বিলিয়ন মানুষ টিভিতে সরাসরি এই অনুষ্ঠানটি দেখবেন।

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৪, ২০১৬ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ১০৯০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন