সর্বশেষ
শুক্রবার ২০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৭ | ০৪ ডিসেম্বর ২০২০

সৈয়দ কায়সারের মৃত্যু পরোয়ানা কারাগারে : মানবতাবিরোধী অপরাধ

বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২২, ২০২০

16.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জাতীয় পার্টির সাবেক নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারের মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার সাঈদ আহমেদ বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার সাঈদ আহমেদ সময় সংবাদকে বলেন, বুধবার (২১ অক্টোবর) সাবেক প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি তারা হাতে পান। নিয়ম অনুযায়ী ১৫ দিনের রিভিউ আবেদনের সুযোগ পাবেন কায়সার। সেটি খারিজ হলে রাষ্টপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইতে হবে যুদ্ধাপরাধী কায়সারকে।

২০১৪ সালের ২৩ ডিসেম্বর মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে নিজের নামে ‘কায়সার বাহিনী’ গঠন করে যুদ্ধাপরাধ সংঘটনকারী হবিগঞ্জ মহকুমার রাজাকার কমান্ডার ও শান্তি কমিটির সদস্য সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারকে সর্বোচ্চ সাজাসহ ২২ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২।

একাত্তরে ১৫২ জনকে হত্যা-গণহত্যা, দুই নারীকে ধর্ষণ, পাঁচজনকে আটক, অপহরণ, নির্যাতন ও মুক্তিপণ আদায় এবং দুই শতাধিক বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ, লুণ্ঠন ও ষড়যন্ত্রের ১৬টি মানবতাবিরোধী অপরাধের মধ্যে ১৪টিই প্রমাণিত হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

১৯৭১ সালে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় ‘কায়সার বাহিনী’ গঠন করে ওই দুই জেলায় যুদ্ধাপরাধে নেতৃত্ব দেন তখনকার এই মুসলিম লীগ নেতা। জিয়াউর রহমানের আমলে তিনি হয়ে যান বিএনপির লোক। হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের সময় জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন সৈয়দ কায়সার।


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২২, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এস বি এই লেখাটি ৬০১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন